কৃষি

নওগাঁয় কালবৈশাখীর তাণ্ডবে পাকা ধান ও আমের ব্যাপক ক্ষতি

  

পিএনএস, মহাদেবপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি : মঙ্গলবার দুপুর থেকেই আকাশ মেঘাচ্ছন্ন হতে শুরু করে এবং বেলা ২ টারদিকে আকাশ কালো ও ভয়ানক রুপ ধারন করার অল্প সময়ের ব্যবধানেই প্রথমে প্রবল বেগে ঝড়ো হাওয়া শুরু হয় ।মহুুর্তে প্রচন্ড ঝড়ের সাথে মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হয় এবং এ ঝরো হাওয়া ও বৃষ্টি নওগাঁর বিভিন্ন এলাকায় প্রায় ৩০ মিনিট ধরে চলার ফলে বিশেষ করে জেলায় মাঠের পর মাঠে থাকা চলতি ইরি বোরো পাকা ও আধাপাকা ধান ক্ষেতের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি করে। একই সাথে আম ও লিচু সহ চলতি মৌসুমের বিভিন্ন ফষলের ব্যাপক ক্ষতি

ব্রি-ধান ৮৪ জাতের ধানের বাম্পার ফলন

  

পিএনএস, গাইবান্ধা প্রতিনিধি : এবার আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলায় বোরো ধানের নতুন জাত ব্রি-ধান ৮৪ চাষে বাম্পার ফলন হয়েছে। ফলে কৃষকদের ব্রি-ধান ৮৪ চাষে আগ্রহ বাড়িয়ে দিয়েছে। তাই এখন সাঘাটা উপজেলার বিস্তীর্ণ ফসলের মাঠ জুড়ে শোভা পাচ্ছে ব্রি-ধান ৮৪ জাতের পাকা ধান। যা ইতোমধ্যে অনেক এলাকাতেই কৃষকরা এই ধান কাটতে শুরু করেছে। কৃষকদের সুত্রে জানা গেছে, অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছর বোরো ধানের ফলন খুব ভালো হয়েছে। কিন্তু যে পরিমাণ খরচ হয়েছে সে হিসেবে বাজারে দাম ভালো পেলে খরচ পুষিয়ে লাভের

তানোরে উন্মুক্ত লটারীর মাধ্যমে কৃষকের ভাগ্য নির্ধারণ

  

পিএনএস, তানোর (রাজশাহী) সংবাদদাতা : রাজশাহীর তানোরে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ন্যায্যমূল্যে খাদ্যশস্য (বোরো ধান) সংগ্রহ করার লক্ষ্যে লটারির মাধ্যমে নির্বাচন করা হচ্ছে কৃষকদের ভাগ্য। আজ মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা খাদ্যশস্য সংগ্রহ ও মনিটরিং কমিটির সভাপতি এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুশান্ত কুমার মাহাতোর নেতৃত্বে উপজেলা শহীদ মিনার চত্বরে উন্মুক্ত লটারির মাধ্যমে ভাগ্যবান কৃষকদের নির্বাচন করা হয়। যাদের কাছ থেকে সরকারি মূল্যে প্রতি কেজি ২৬টাকা দামে ধান কেনা হবে। ২টি পৌরসভা ও ৭টি ইউনিয়নের মধ্যে প্রথম

বৃষ্টির পানিতে ভাসছে কৃষকের স্বপ্ন!

  

পিএনএস, বেনাপোল প্রতিনিধি : এক দিনের টানা কয়েক ঘন্টা বৃষ্টির পানিতে ডুবে গেছে যশোরের শার্শা উপজেলার কয়েকশত বিঘা বরো ধান। বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে বরো ধানের সাথে সাথে কৃষকের সারা বছরের স্বপ্ন। হালকা, মাঝারি ও ভারী বৃষ্টিপাতে তলিয়ে যাওয়া মাঠের পাকা ধান নিয়ে কঠিন বিপাকে পড়েছেন কৃষকেরা। একদিকে শ্রমিক সঙ্কট, অপরদিকে বোরো ধান কেটে বাড়ি আনতে তিনগুণ পরিশ্রমের পরও সোনালী ফসল ঘরে তুলতে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে উপজেলার শত শত কৃষককে। হঠাৎ করে বৃষ্টির কারণে কেটে রাখা ভিজে ধান ঘরে তোলা, ধান মাড়াই করে

পদ্ম ফুলের চাষ: করোনার থাবায় পণ্ড কৃষকের স্বপ্ন

  

পিএনএস, বেনাপোল প্রতিনিধি : যশোরের শার্শা উপজেলার বেড়ী নারায়নপুর গ্রামে শুরু হয়েছে অপরুপ সৈন্দর্যের প্রতিক পদ্ম ফুলের চাষ। উপজেলার বেড়ী-নারায়নপুর গ্রামের আবদুল বারিক ওরফে ফুল বারিকের ছেলে সিরাজুল ইসলাম নামে এক চাষী তার দীর্ঘ দুই বছরের চেষ্টায় একটি মাত্র চারা বিজ দিয়ে আজ তিনি চার বিঘা জলাকারে ফুটিয়ে তুলেছেন পদ্ম ফুলের বিশালাকার লিলাভুমী। তবে বর্তমানে মহামারি করোনা ভাইরাসের ভয়াল থাবায় দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন মলিন হতে চলেছে তার।পদ্ম ফুল গ্রামবাংলার মানুষের কাছে অতি পরিচিত একটি ফুল। এক সময়

কাঁকড়া নিয়ে বিপাকে চাষীরা

  

পিএনএস ডেস্ক: করোনাভাইরাসের কারণে রফতানি বন্ধ থাকায় কাঁকড়া নিয়ে বিপাকে পড়েছেন উপকূলীয় বরগুনার পাথরঘাটা ও তালতলী উপজেলার চাষীরা। ইতোমধ্যে তারা অনেকেই পুঁজি হারিয়ে নিঃস্ব হতে চলেছেন। একদিকে লোকসান আর অন্যদিকে ঋণের বোঝায় দিশেহারা হয়ে হতাশার মধ্যে দিন কাটছে তাদের।খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বরগুনার পাথরঘাটা ৪৭০টি ঘেরে পাঁচ শতাধিক চাষী কাঁকড়া চাষ করেছেন। স্বল্প সময়ে উৎপাদন, চীনে ভালো চাহিদা ও দাম থাকায় উপজেলায় গত কয়েক বছরে কাঁকড়া চাষী যেমন বেড়েছে, তেমনি গড়ে উঠেছে নতুন নতুন কাঁকড়া চাষের ঘের। কিন্তু

রাজশাহীতে দুই বোঁটায় ৪৬টি!

  

পিএনএস ডেস্ক: রাজশাহীর বাঘায় দুই গ্রামের একটিতে লাউয়ের মাচায় দোল খাচ্ছে এক বোঁটায় ছোট বড় ২৬টি ও আর এক গ্রামের এক বোঁটায় ২০টি লাউ। আলোচিত সেই লাউগাছের এক বোঁটায় এতো লাউ ধরার চাঞ্চল্যকর খবর পেয়ে সেই দুইগ্রামে প্রতিদিনই ভিড় বাড়ছে উৎসুক জনতার।এক বোঁটায় ছোট বড় ২৬টি লাউ ধরেছে উপজেলার বাউসা মাঠপাড়া গ্রামের সাকবর আলীর বসত বাড়ির সাপরা ঘরের পাশে লাগানো একটি লাউ গাছে। আর একই উপজেলার সোনাদহ গ্রামের আমজাদ হোসেনের বাড়ির আঙ্গিনায় লাগানো লাউ গাছের এক বোঁটায় ধরেছে ছোট বড় ২০টি লাউ (কদু)। বিরল দৃশ্যটি

হবিগঞ্জে হাওরাঞ্চলে ধান কাটা হয়েছে ৮১ শতাংশ

  

পিএনএস ডেস্ক: হবিগঞ্জ জেলার হাওরাঞ্চলে ইতিমধ্যে ৮১ শতাংশ ধান কাটা সম্ভব হয়েছে। উৎপাদনও লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে আশা করছে কৃষি বিভাগ।এ দিকে হাওর অঞ্চলে সরকারিভাবে ২৬ এপ্রিল থেকে ধান সংগ্রহ করার কথা ছিল। কিন্তু এখনও হবিগঞ্জ জেলায় ধান কেনা শুরু হয়নি। সরকারি নির্দেশনা থাকলেও এখন পর্যন্ত ধান কেনা নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি কর্তৃপক্ষ।সরকারিভাবে ধান বিক্রি করতে না পেরে কৃষকদের মধ্যে উপযুক্ত মূল্য পাওয়া নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। খোলাবাজারে সরকার নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে

গুরুদাসপুরে বাঙ্গিতে ‍কৃষকের হাতাশা

  

পিএনএস ডেস্ক: প্রতি বছরের মতো এবারো চলনবিল অধ্যুষিত গুরুদাসপুরে বাম্পার ফলন হয়েছে বাঙ্গির। দীর্ঘকাল ধরে এই উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বাঙ্গি চাষ করে আসছেন কৃষকরা। এখানকার উৎপাদিত বাঙ্গি রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্রি হয়ে থাকে। কিন্তু করোনা ভাইরাসের প্রভাবে পাইকাররা আসতে না পারায় বাঙ্গির মূল্য ও সরবরাহ নিয়ে হাতাশায় ভুগছেন চাষীরা।জানা গেছে- উপজেলার শিধুলী, চলনালী ও পোয়ালশুড়া গ্রাম বাঙ্গি চাষের জন্য বিশেষ পরিচিত। প্রতিদিন চাষীরা ক্ষেত থেকে বাঙ্গি তুলে পাইকারী দরে বিক্রি করছেন

কৃষক বঞ্চিত হবে না জানালেন কৃষিমন্ত্রী

  

পিএনএস ডেস্ক : কৃষকরা যাতে কোনোরকম অসুবিধা না পড়েন সেজন্য সরকার নানামুখী পদক্ষেপ নিয়েছে। বিশেষ করে এবার আগের তুলনায় বোরো ধান কেনার পরিমাণ যেমন বাড়ানো হয়েছে তেমনি সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান কেনার বিষয়টিও নিশ্চিত করতে পদক্ষেপ নিয়েছে।কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, বর্তমান উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কৃষকদের স্বার্থ সুরক্ষায় সরকার কৃষকদের কাছ থেকে ধান কেনার বিষয়টিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে। এক্ষেত্রে যাতে কোনো মধ্যস্বত্বভোগী থাকার সুযোগ নেই। সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকেই ধান কেনা হবে। কৌশল