কৃষি

ঠাকুরগাঁওয়ে মরিচের বাম্পার ফলন, দাম ভাল পাওয়ায় চাষীদের স্বস্তি

  

পিএনএস ডেস্ক : ঠাকুরগাঁও জেলার বিভিন্ন এলাকা মরিচের বাম্পার ফলন হয়েছে। দাম ভাল পাওয়ায় চাষীদের চেহারায় স্বস্তির ছাপ দেখা দিয়েছে। ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলায় ভাউলার হাটসহ এলাকার কৃষকরা বেশ কয়েক বছর ধরে মরিচ চাষে ঝুঁকে পড়ছে। দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে মরিচের চাষ-আবাদ। গত এক মাস ধরে পাকা মরিচ তুলে শুকিয়ে বিক্রি করছে এলাকার কৃষকরা। এবার বাম্পার ফলন হওয়ায় এবং ৫,০০০ টাকা মন দাম পাওয়ায় চাষীদের মুখে স্বস্তির ছাপ দেখা দিয়েছে। গত শনিবার ভাউলার হাটে গিয়ে দেখা যায় হাজার হাজার কৃষক মরিচ নিয়ে এসেছে। এলাকার পাইকাররা তা

এক গাছের দামই ৫ লাখ টাকা!

  

পিএনএস ডেস্ক: রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে চলছে মাসব্যাপী জাতীয় বৃক্ষমেলা। এ মেলায় দেশের নামিদামি নার্সারি মালিকরা স্টলে গাছের পসরা সাজিয়েছেন। দেশি-বিদেশি প্রায় হাজার প্রজাতির গাছ স্থান পেয়েছে এ মেলায়। পাঁচ টাকা থেকে শুরু করে পাঁচ লাখ টাকা দামের গাছ রয়েছে এ মেলায়। শুক্রবার মেলার দ্বিতীয় দিনে অনেকেই দর্শনার্থী ভিড় জমিয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার জাতীয় বৃক্ষ রোপন অভিযান ও বৃক্ষমেলা ২০১৯-এর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।শুক্রবার বিকেলে সরেজমিনে মেলা পরিদর্শনে দেখা গেছে, দেশের সরকারি-বেসরকারি

যেখানে আমের কেজি ১৮ টাকা!

  

পিএনএস ডেস্ক: রাজশাহীর বাঘায় গাছ পাকা আম ১৮-২০ টাকা কেজি দরে কিনছেন ব্যবসায়ীরা।রবিবার চকবাউসা গ্রামের নজরুল ইসলাম নামের এক ফড়িয়া ব্যবসায়ী আড়ানী গোচর গ্রামের বাড়ি বাড়ি ঘুরে ২০ কেজিতে আম কিনতে দেখা গেছে।জানা গেছে, বাগান মালিকরা পাকা আম গাছ থেকে নামিয়ে বাড়িতে রাখে। এই আম প্রতিদিন সকালে ফড়িয়া ব্যবসায়ীরা বাড়ি বাড়ি ঘুরে ২০ কেজিতে ক্রয় করছে। এই আম আবার তারা উপজেলার বিভিন্ন আড়তে ২২ থেকে ২৫ টাকা কেজিতে বিক্রি করছে।উপজেলার গোচর গ্রামের আম বাগান মালিক মাজদার রহমান সরদার বলেন, আমার আম

হাটগুলোতে ধানের দর বেড়েছে: খাদ্যমন্ত্রী

  

পিএনএস ডেস্ক : সরকারি খাদ্যগুদামে সংগ্রহ করায় হাটগুলোতে ধানের বাজার দর বেড়েছে। ঈদের আগে ও পরে প্রতি মণ সরু ধানের দর বেড়েছে ১০০ থেকে ১২০ টাকা পর্যন্ত। ঈদে নিত্যপণ্যের দর ছিলো স্থিতিশীল। এখনও সাধারণ ক্রেতার ক্রয়সাধ্যেই রয়েছে।শুক্রবার দুপুরে নওগাঁয় নিত্যপণ্যের বাজার দর পরিস্থিতি দেখতে গিয়ে এসব কথা বলেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। বাজারে গিয়ে মাছ মাংস ও অন্যান্য পণ্যের দর যাচাই করেন তিনি। এসময় সাধারণ ক্রেতাদের সাথে কথা বলেন, খোঁজ খবর নেন মন্ত্রী।মন্ত্রী বলেন, আগামীতে কৃষককে ধান নিয়ে

ধানের দাম: সংকট অনুমানে ব্যর্থ হয়েছে বাংলাদেশ সরকার?

  

পিএনএস ডেস্ক : বিভিন্ন হিসেব-নিকেশ আর পূর্বাভাস অনেকটা আগে থেকেই ধারণা দিচ্ছিল যে এবার বাংলাদেশে বোরো ধানের উৎপাদন বেশ ভালো হবে।শেষ পর্যন্ত সেটাই হয়েছে - এবার ধান উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছিল এক কোটি ৪০ লক্ষ টন, কিন্তু উৎপাদন বেশি হয়েছে এর চেয়ে ১৩ লক্ষ টন।ধানের উৎপাদন বৃদ্ধি স্বাভাবিকভাবেই বেশ খুশির খবর। কিন্তু এবারে এটি উল্টো ফল বয়ে এনেছে বেশীরভাগ কৃষকের জন্য।ধানের দাম এতোটাই কমে গেছে যে তীব্র ক্ষোভে ফসলের মাঠে আগুন ধরিয়ে দিয়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছেন টাঙ্গাইলের এক কৃষক। বিভিন্ন

নবাবগঞ্জে সেই বেগুনি রংয়ের ধানের ফলন হয়েছে বিঘা প্রতি ২৬ মন

  

পিএনএস, নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার পুটিমারা ইউনিয়নের চড়ারহাটের পশ্চিম পার্শ্বে বিরামপুর-ঘোড়াঘাট পাকা সড়কের উত্তর ধারে নজর কাড়া বেগুনি রংয়ের যে ধান ক্ষেতটি চাষ করা হয়েছিল তা কাটা হয়েছে।ওই ধানটির ফলন হয়েছে বিঘা প্রতি প্রায় ২৬ মন। উপজেলা কৃষি অফিসার আবুরেজা মোঃ আসাদুজ্জামান ও কৃষক আঃ হাকিম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। ধানটি বাজারে নেয়ায় পর এর মূল্য এবং চাহিদা কেমন হবে তা জানা যাবে। উপজেলার পুটিমারা ইউনিয়নের দঃ জয়দেবপুর গ্রামের আঃ হামিদের ছেলে কৃষক আঃ হাকিম ওই

বিরামপুরে ইরির লক্ষমাত্রা ও অর্জন

  

পিএনএস, বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : চলতি মৌসুমে বিরাপুরে ইরি ফসলের লক্ষমাত্রা ছিল ১৬,১৬৫ হেক্টর জমি। উৎপাদিত হয়েছে ১৬,২০০ হেক্টর জমিতে। ফসল উৎপাদনের লক্ষমাত্রা ছিল ৬৬,০৫৫ মেঃ টন সম্ভাব্য উৎপাদন ৬৮,০৪০ মেঃ টন। কৃষকের বিঘা প্রতি জমিতে সম্ভাব্য চাষ খরচ হয়েছে পানিসেচ ১৩০০টাকা, বীজ ৮০০ টাকা, সার ২৫০০ টাকা, শ্রমিক ১২০০ টাকা, ধান কর্তন করা ৩৮০০ টাকা, মোট ৯,৬০০ টাকা। যদিও সরকারি ভাবে ধানের কেজি প্রতি মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ২৬ টাকা। কিন্তু কৃষক পাচ্ছে বাজারে কেজি প্রতি সম্ভাব্য ১২ টাকা ।

গাড়ি পেলেন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তারা

  

পিএনএস ডেস্ক : কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক ৮৮ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাদের হাতে গাড়ির চাবি তুলে দিয়েছেন।সোমবার রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ’র থ্রিডি অডিটোরিয়ামে উপজেলা পর্যায়ে প্রযুক্তি হস্তান্তর র্শীষক প্রশিক্ষণ প্রকল্পের (৩য় পর্যায়ে) আওতায় উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাদের গাড়ী বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।সরকারি এসব গাড়ি প্রযুক্তি স্থানান্তরের কাজে ব্যবহারের জন্য কৃষি কর্মকর্তাদের আহ্বান জানান কৃষিমন্ত্রী।পর্যায়ক্রমে সব উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাদের গাড়ি প্রদান

সুনামগঞ্জে দালালমুক্ত ধান ক্রয়ের পরিবেশের জন্য স্মারকলিপি

  

পিএনএস ডেস্ক : সুনামগঞ্জে সরকারিভাবে ধান ক্রয়ের পরিমাণ বাড়ানো, দালাল ও ফরিয়ামুক্ত পরিবেশে ধান ক্রয় এবং এই প্রক্রিয়ার কৃষক প্রতিনিধি রাখার দাবিতে খাদ্যমন্ত্রীর নিকট স্মারকলিপি দিয়েছে জেলা কৃষক লীগ। রোববার দুপুরে জেলা জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে মন্ত্রীর কাছে এই স্মারকলিপি পাঠানো হয়। জেলা প্রশাসকের অনুপস্থিতিতে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. হারুনুর রশিদ স্মারকলিপি গ্রহণ করেন। স্মারকলিপিতে বলা হয়, সুনামগঞ্জে এবার ১৩ লাখ ২১ হাজার মেট্রিক টন বোরো ধান উৎপাদন হয়েছে। কিন্তু সরকারিভাবে ধান ক্রয় করা

যে গ্রামের বাতাসে লেবুর ঘ্রাণ ভাসে

  

পিএনএস ডেস্ক : মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার বালিয়াখোড়া গ্রাম। বাইরের যে কেউ এ গ্রামে ঢুকলে অবাকই হবেন। কারণ এ গ্রামের বাতাসে ভেসে বেড়ায় লেবুর সুগন্ধি ঘ্রাণ। যেন এটি কোনো গ্রাম নয় বরং বিস্তীর্ণ এক লেবু বাগান। গ্রামটিতে প্রায় তিন’শ পরিবারের বসবাস। প্রতিটি বাড়িতেই রয়েছে লেবু গাছ। বাড়ির উঠান, আঙিনা যেখানেই ফাঁকা জায়গা, সেখানেই লেবু গাছ লাগানো হয়েছে। আছে দেড় শতাধিক ছোট-বড় লেবুর বাগান। লেবুচাষের বিস্তৃতি আর সাফল্যে ‘বালিয়াখোড়া’ এখন পরিচিত লেবুর গ্রাম নামে। লেবুচাষ পাল্টে দিয়েছে এ অঞ্চলের

Developed by Diligent InfoTech