স্বাস্থ্যকথা

ঈদে হৃদরোগীরা যেভাবে থাকবেন সুস্থ

  

পিএনএস ডেস্ক : ঈদুল আজহা মানেই কোরবানির মাংস। উৎসবের এই দিনে মাংস রান্না হয় অন্য যেকোনো দিনের থেকে বেশি। আর একারণেই হৃদরোগীরাও অতিরিক্ত তৈলাক্ত জাতীয় খাবার খেয়ে ফেলেন। এরপরেই বেড়ে যায় অসুস্থতা। তবে কিছু নিয়ম মেনে চললেই ঈদের দিনগুলোতেও হৃদরোগীরা থাকবেন সুস্থ।গরুর মাংস, খাসির মাংস, মুরগির মাংস, ইলিশ মাছ ভাজা কিংবা কলিজা ভাজার মতো ভারী খাবার ঈদের দিন বেশি থাকে। কম থাকে হালকা খাবার যেমন- চপ, কাটলেট, সেমাই, জর্দা বা নুডলস।তাই সকালে নিজ বাসায় অল্প পরিমাণে হালকা খাবার সেমাই, জর্দা খেয়ে ঈদগাহে

এই ঈদের হেলথ টিপস

  

পিএনএস ডেস্ক:কোরবানির ঈদ চারদিকে মাংসের ছড়াছড়ি, সেই সঙ্গে বাড়তি খানাপিনা। এসময় বেশিরভাগ মানুষই গরু ও খাসির মাংস খেয়ে থাকেন বছরের অন্যান্য সময়ের তুলনায় অনেক বেশি। অতিরিক্ত রেড মিট খাওয়ার কারণে বদহজম থেকে শুরু করে উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা দেখা দেয় অনেকেরই। তাই বলে কী গরুর মাংস খাওয়া বন্ধ রাখবেন? মোটেই না। বরং জেনে নিন গরুর মাংস রান্নার কিছু স্বাস্থ্যকর উপায়। এতে আপনার মাংস খাওয়া বেশি হলেও ক্ষতি হবে কম। গরু, খাসি এমন সব ধরণের রেড মিট রান্নার ক্ষেত্রেই এসব টিপস আপনার কাজে আসতে পারে।১) শুধু মাংস

বর্ষায় সুস্থ রাখবে চা

  

পিএনএস ডেস্ক: ধোয়াওঠা এককাপ চা আপনার সারাদিনের ক্লান্তি ভুলিয়ে দিতে পারে। রুমঝুম বৃষ্টিতে দেখতে দেখতে চায়ে চুমুক- এর থেকে আয়েশী আর কী হতে পরে! কিন্তু স্বাস্থ্যের দোহাই দিয়ে সেই চা টা গ্রিন বা হোয়াইট টি হলে কিন্তু পুরো মজাটাই শেষ। মন খারাপ করবেন না। আপনার বৃষ্টিবিলাস জমিয়ে দিতে পারে এক কাপ মশলা চা। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরাও কিন্তু সেকথাই বলছেন।জেনে নিন কী ভাবে চাকে আরও স্বাস্থ্যসম্মত করে তোলা যায়, চায়ের সঙ্গে কী মেশালে এই বর্ষায় কোনো সংক্রমণ বা অ্যালার্জি আপনার কাছে ঘেঁষতেও পারবে না।রোগ

ওজন কমায় আনারস

  

পিএনএস ডেস্ক: যেকোনো ফলই জুস করে খাওয়ার বদলে আস্ত খাওয়ার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা। কিন্ত আনারস এমন একটি ফল যা কিনা আস্ত খাওয়ার থেকে যদি জুস করে খাওয়া বেশি ভালো। অন্য যেকোনো ফলের রসের থেকে আনারস উপকারী। আনারসের জুসে আলাদা করে চিনি দিতে হয় না। এটি এমনিই মিষ্টি। এছাড়াও এর মধ্যে থাকে অ্যাসকরবিক অ্যাসিড। যা শরীরে ভিটামিন সি এর চাহিদা পূরণ করে। জেনে নিন আনারসের জুস খেলে যেসব উপকার মিলবে-আনারসের জুস যেকোনো রকম ক্ষত সারাতে কার্যকরী। এছাড়াও আনারস খেলে হজম ভালো হয়, দীর্ঘদিনের জ্বালা যন্ত্রণা থেকে

দিনে দিনে বাড়ছে ডেঙ্গু আক্রান্ত চিকিৎসক-নার্সদের সংখ্যা

  

পিএনএস ডেস্ক: দিন যতই যাচ্ছে ডেঙ্গুতে চিকিৎসক ও হাসপাতালের সেবা সংশ্লিষ্টদের আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা বেড়েই চলছে। মৃত্যুর মিছিলেও যোগ হচ্ছে নতুন নতুন নাম। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এবার ডেঙ্গু পরিস্থিতি উদ্বেগজনক। ডেঙ্গুর এই ভয়াবহতা থাকতে পারে আগষ্ট শেষে সেপ্টেম্বর মাস জুড়ে।সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রাজধানীর মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের কনসালটেন্ট ডা. রেহনুমা ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে একই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। একইভাবে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স

২৪ ঘন্টায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত ২৪২৮ জন

  

পিএনএস ডেস্ক: মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়েছে ডেঙ্গু। আতঙ্কে মানুষ। কিছুদিন আগেও কেবল রাজধানী ঢাকায় সীমাবদ্ধ ছিল এডিস মশাবাহী ভাইরাস ডেঙ্গুর (ডেঙ্গি) আক্রমণ। এখন রাজধানী ঢাকা ও ঢাকার বাইরে দেশের অন্যান্য অঞ্চল থেকে প্রায় সমান হারে ডেঙ্গু আক্রান্তের খবর পাওয়া যাচ্ছে। এতো অধিক সংখ্যায় মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে তবু সরকার ডেঙ্গুর এ পরিস্থিতিকে মহামারী বলতে চায় না। সরকার বলছে এখনো নিয়ন্ত্রণে ডেঙ্গু। রাজধানীর চতুর্দিকে এতো মশা ! সে কারণে রাজধানীবাসী চরম আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন। কখন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে যায় সে ভয়ে

হাসপাতালের ডেঙ্গু সেলে ঠাঁই নাই

  

পিএনএস ডেস্ক: ডেঙ্গু সে‌লের ওয়ার্ড, ওয়া‌র্ডের মে‌জে, বারান্দা, এমন‌ কী লিফ‌টের সাম‌নের ফাঁকা জায়গা‌তেও পাতা হ‌য়ে‌ছে ডেঙ্গু রোগীদের বিছানা। অন্যান্য ওয়ার্ডগু‌লো‌তে রোগীর সংখ্যা কম হ‌লেও ডে‌ঙ্গু সে‌লে যেন ঠাঁই নেই অবস্থা। সোমবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেলের নতুন ভব‌ণের ডে‌ঙ্গেু সে‌লে এমন অবস্থা দেখা গেছে। দেখা যায় ডেঙ্গু সে‌লে ব্লাড টে‌স্টের রি‌পোর্ট সংগ্রহ ও সেম্পল কা‌লেকশা‌নে অপেছক্ষা কর‌ছেন শ‌ত শ‌ত রোগী। কেউ রি‌পোর্ট সংগ্রহ আবার কেউ অপেটক্ষা কর‌ছেন সেম্পল কা‌লেকশনের লাইনেন।সাত তলায়

ডেঙ্গুর সঙ্গে লড়াই করবে যেসব খাবার!

  

পিএনএস ডেস্ক: বলা বাহুল্য অন্যান্য বছরের তুলনায় এবছর ডেঙ্গুর প্রকোপ একটু বেশিই লক্ষ্য করা যাচ্ছে। বর্তমানে ঘরে ঘরে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এতে মারাও যাচ্ছেন অনেকে। ফলে আমাদের সবার মধ্যেই আতঙ্ক বিরাজ করছে।বর্তমান পরিস্থিতি এমন হয়ে দাড়িয়েছে যে, হাসপাতালে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যাই সব থেকে বেশি দেখা যাচ্ছে। যা বর্তমানে ভয়াবহ দুশ্চিন্তার ব্যাপার।ডেঙ্গু হলে রক্তে অনুচক্রিকার সংখ্যা কমে যায়। ডেঙ্গুজ্বরে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে শরীরে যেন পানিশূন্যতা না হয়। সেই

ডেঙ্গু : জ্বর কমলেই বিপদ বাড়ে!

  

পিএনএস ডেস্ক: তাহমিনা আক্তার পলি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের খন্ডকালীন শিক্ষক ও মোহাম্মদপুর এলাকার বাসিন্দা।তার সপ্তম শ্রেণীতে পড়ুয়া ছেলে নব জাহিদুল কবীরের গায়ে জ্বর ওঠেছিল ২০ জুলাই। দেরী না করে দ্রুতই সন্তানকে হাসপাতালে নিয়ে যান তারা।"যখন ছেলেকে হাসপাতালে নিলাম তখন জ্বর ছিলো কম। কিন্তু প্রেশার কমে গিয়েছিল। রক্তে প্লেটলেট কমতে শুরু করে। এরপর সাত দিন হাসপাতালে থেকে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরলাম।"তিনি বলছেন, "জ্বর চলে যাওয়ার পর ছেলেকে স্যালাইন ও প্রচুর তরল খাওয়াতে হয়েছিল এবং চিকিৎসকরা যে

ডেঙ্গুতে আবহাওয়াবিদের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর মৃত্যু

  

পিএনএস ডেস্ক: ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে শারমিন আক্তার (২৪) নামের এক অন্তঃসত্ত্বা নারী মারা গেছেন।আজ সোমবার ঢাকার শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শারমিন মারা যান।শারমিন ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। তাঁর বাড়ি জয়পুরহাটে। ঢাকার আবহাওয়াবিদ নাজমুল হোসেনের স্ত্রী শারমিন।পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, শারমিন গত শুক্রবার জ্বর নিয়ে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি হন। পরীক্ষায় তাঁর ডেঙ্গু ধরা পড়ে।শারমিনের ভগ্নিপতি আনিছুর রহমান জানান, রক্তের প্লাটিলেট না বাড়ায়

Developed by Diligent InfoTech