খরা প্রবণ বরেন্দ্র অঞ্চলে বৈচিত্র্যময় মসলা ফসলের মাঠ দিবস

  

পিএনএস, তানোর (রাজশাহী) সংবাদদাতা : রাজশাহীর তানোরে খরা প্রবণ ও পানি সংকটাপন্ন বরেন্দ্র অঞ্চলের জন্য কম পানি নির্ভর ও পানি সাশ্রয়ী বৈচিত্র্যময় মসলা ফসলের মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়। উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিক এবং বরেন্দ্র বীজ ব্যাংক এর যৌথ আয়োজনে বুধবার সকালে উপজেলার দুবইল গ্রামে উক্ত মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়।

মাঠ দিবসে ১০টি পানি সাশ্রয়ী মসলার ফসলের বিভিন্ন দিকগুলো তুলে ধরা হয়। স্থানীয় দুবইল গ্রামের কৃষক সংগঠনের সদস্যদের আগ্রহের কারণে ১০ প্রকার মসলা কালোজিরা, মহুরী, ধনিয়া, গুজি তীল, তিশি, কাউন, ফিরিঙ্গি, রাঁধুনী, জাউন, মেথি মিলে মোট ১০টি জাতের পরীক্ষামূলক চাষ করা হয়েছে।

মাঠ দিবেসে জাতীয় পরিবেশ পদক প্রাপ্ত কৃষক ইউসুফ আলী মোল্লার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবু বক্কর। বিশেষ অতিথি হিসেব ছিলেন তানোর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মোঃ সাইফুল্লাহ, বারসিক এর পরিচালক এবি এম তৌহিদুল আলম, জাতীয় কৃষি পদক প্রাপ্ত নুর মোহাম্মদ, বারসিক বরেন্দ্র অঞ্চল সমন্বয়কারী শহিদুল ইসলাম, প্রোগ্রাম অফিসার (কৃষি) অমৃত কুমার সরকার সহ এলাকার প্রায় শতাধিক কৃষক -কৃষাণী।

প্রধান অতিথি তানোর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মোঃ সাইফুল্লাহ বলেন-“ দিনে দিনে যে হারে বরেন্দ্র অঞ্চলের ভূ-গর্ভস্থ্য পানি নীচের দিকে নেমে আসছে এতে করে আমাদের আরো সংকট দেখা দিবে। পানি নির্ভর অতিরিক্ত চাষাবাদের কারনে এই সমস্যা দেখা দিচ্ছে। ” তিনি আরো বলেন আজকের যে কম পানি নির্ভর এবং পানি সাশ্রয়ী ফসলের মাঠ দিবস করা হলো তা সত্যিই একটি এই অঞ্চলের জন্য উপযোগী একটি বিষয়। তিনি আগামীতে সকল কৃষকদের এই মসলা ফসলের চাষের পরামর্শ দেন।

উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আবু বক্কর বলেন- “ আমাদের আগামীর প্রজন্ম এবং পরিবেশকে বাঁচাতেই কম পানি নির্ভর ফসলের চাষ করতে হবে।”

বারসিকের পরিচালক এবিএম তৌহিদুল আলম বলেন-“ বরেন্দ্র অঞ্চলের পানি নিরাপত্তা এবং পরিবেশ রক্ষায় কম পানি নির্ভর এই ফসলগুলো অনেক বেশী ভূমিকা পালন করতে পারে।”
পরীক্ষণ প্লটের পরিচালনাকারী কৃষক মোঃ লিয়াকত আলী বলেন-“ ফসলগুলো অনেক ভালো হয়েছে, এতে পানি দেয়া লাগেনি, সার কম লেগেছে, ফলনও ভালো হয়েছে।”

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন