১৭ বছর বয়সে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা!

  

পিএনএস ডেস্ক : তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক প্রতিষ্ঠান গ্লোবালস ইনকরপোরেশনের সহ–প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সুহাস গোপীনাথ। ভারতের এই তরুণের বাড়ি বেঙ্গালুরুতে। ‘দ্য লিমকা বুক অব রেকর্ডস’ সুহাসকে বলছে পৃথিবীর সর্বকনিষ্ঠ প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা।

১৯৯০-এর দশকের মাঝামাঝি সময়ের কথা। স্কুল শেষে বন্ধুরা যখন খেলার মাঠে সময় কাটাতেন, সুহাস যেতেন একটি ইন্টারনেট ক্যাফেতে। সে সময় সবেমাত্র ইন্টারনেট ক্যাফে খোলা শুরু হয়েছে। ক্যাফের মালিক দুপুরের খাবার খেতে যাওয়ার সময় দেখাশোনার দায়িত্ব দিয়ে যেতেন ছোট্ট সুহাসের কাঁধে। এভাবেই সুহাস ব্যবসায়ী হওয়ার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেন। আর দশটা মা-বাবার মতো সুহাসের মা-ও অবশ্য ভাবতেন, ইন্টারনেট ব্যবহার করে করে ছেলেটা বখে যাচ্ছে না তো!

না, ছেলে বখে যায়নি। বরং নিজে নিজেই শিখেছে ওয়েবসাইট তৈরির কাজ। ১৯৯৮ সালে সুহাসের বয়স যখন ১৩ বছর, তখন তিনি তাঁর প্রথম ওয়েবসাইটটি তৈরি করেন। সুহাস বলেন, ‘আমি চেয়েছিলাম একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করব, যেখানে ভারতীয়রা নানা রকম অনুষ্ঠান, বিভিন্ন খাবার জায়গার টিপস এবং তাঁদের আগ্রহের বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করবেন।’ তবে পরবর্তী সময়ে ওয়েবসাইটটি হ্যাক হয়ে যায়। এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের সিলিকন ভ্যালির প্রতিভা সন্ধানীরা সুহাসের খবর পেয়ে তাঁকে ডেকে পাঠান। সেটাই ছিল সুহাসের প্রথম বিমান–যাত্রা। তিনি বলেন, ‘তারা আমাকে তাদের প্রতিষ্ঠানে কাজের প্রস্তাব দেয়। এমনকি যুক্তরাষ্ট্রে আমার পড়াশোনার খরচ দেবে বলেও জানিয়েছিল। কিন্তু আমি রাজি হইনি। যা আমি নিজেই নিজের প্রতিষ্ঠানের জন্য করতে সক্ষম, তা আমি অন্যের জন্য করতে যাব কেন!’

১৪ বছর বয়সে তিনি উদ্যোক্তা হওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। তবে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের পথ সহজ ছিল। মা-বাবা রাজি ছিলেন না। আরও বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল ভারতের আইন। কারণ, সেখানকার আইন মোতাবেক ১৮ বছর বয়সের আগে কেউ নিজের প্রতিষ্ঠান চালু করতে পারবে না। তবে এসব বাধা সুহাসকে আটকে রাখতে পারেনি। তিনি তিন বন্ধুকে নিয়ে অনলাইনে তাঁর প্রতিষ্ঠানটি নিবন্ধন করিয়ে কাজ শুরু করেন। প্রতিষ্ঠান শুরু করার পরও নানা বাধার সম্মুখীন হতে হয়েছে। সুহাসের বয়স মাত্র ১৪ বছর জেনে অনেক ক্রেতাই চুক্তি বাতিল করে দিতেন!

তবে এসব বাধাও তিনি অতিক্রম করেছেন। বেশ কয়েকজন কর্মী নিয়োগ দিয়ে খুলে বসেন নিজের অফিস। তাঁর প্রতিষ্ঠানের কর্মীরাও বয়সে ছোট। তাঁদের গড় বয়স একুশ বছর। সবচেয়ে কম বয়সী কর্মীর বয়স ১২, আর সবচেয়ে বয়োজ্যেষ্ঠ কর্মীর বয়স ২৬ বছর! ২০০০ সালে, ১৭ বছর বয়সে নিজের প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার দায়িত্ব নেন এই তরুণ।

সুহাসের প্রতিষ্ঠান গ্লোবালস ইনকরপোরেশনের অফিস বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, কানাডা, জার্মানি, ইতালি, স্পেন, অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাজ্য, সিঙ্গাপুর এবং মধ্যপ্রাচ্যে রয়েছে। আর এসব প্রতিষ্ঠানে ভারতের প্রায় ২০০ এবং বিভিন্ন দেশের প্রায় ৬০ জন কর্মী নিযুক্ত আছেন।

২০০৭ সালে তিনি ‘দ্য ইউরোপিয়ান পার্লামেন্ট অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন ফর হিউম্যান ভ্যালুজ’–এর পক্ষ থেকে ‘ইয়ং অ্যাচিভার অ্যাওয়ার্ড’ লাভ করেন। ২০০৮-০৯ সালে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামে তিনি ‘ইয়ং গ্লোবাল লিডারস’দের মধ্যে একজন ছিলেন। ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের ইতিহাসে সুহাস সর্বকনিষ্ঠ সদস্য ছিলেন।

পিএসএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech