আসছে ভারতীয় পেঁয়াজ, হিলিতে কেজি ২২ টাকা!

  


পিএনএস ডেস্ক: টানা সাড়ে ৫ মাস বন্ধ থাকার পর রোববার থেকে দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে শুরু হয়েছে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি। প্রথম দিনেই এই বন্দর দিয়ে ১৯টি ট্রাকে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে ৪২৮ মেট্রিক টন পেঁয়াজ।

এ দিকে ভারতের পেঁয়াজ বাংলাদেশে প্রবেশ করায় বাজারে অস্বাভাবিক হারে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম। হিলিতে এখন পেঁয়াজের কেজি ২২-২৩ টাকা।

হিলি স্থলবন্দরের আমদানিকারকরা জানিয়েছেন, অভ্যন্তরীণ বাজারে পেঁয়াজের সংকট ও মূল্যবৃদ্ধির কারণ দেখিয়ে গত বছরের ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দেয় ভারত সরকার। এরপর গত ২৬ ফেব্রুয়ারি পেঁয়াজ রফতানির সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় ভারত।

এরপর হিলি স্থলবন্দরের আমদানিকারকরা কৃষি মন্ত্রণালয়ের উদ্ভিদ সংগনিরোধ অফিসে ভারত থেকে ২৫ হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানির জন্য ‘ইমপ্রোট পারমিটে’র আবেদন করেন। এর মধ্যে ৮ হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানির অনুমতি দেয়া হয়। এ সব পেঁয়াজ রোববার থেকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশ প্রবেশ করতে শুরু করেছে।

হিলি স্থলবন্দরের বেসরকারি অপারেটর পানামা পোর্ট লিংক লিমিটেডের গণসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন মল্লিক প্রতাপ জানান, রোববার প্রথম দিনে ভারত থেকে ১৯টি পেঁয়াজবাহী ট্রাক বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। এই ১৯টি ট্রাকে বাংলাদেশে পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে ৪২৮ মেট্রিক টন।

হিলি বন্দরের আমদানি-রফতানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন-উর রশিদ হারুন বলেন, ২৫০ মার্কিন ডলারে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, পেঁয়াজ আমদানির ফলে কমতে শুরু করেছে বাজারে পেঁয়াজের দাম। এখন প্রতি কেজি পেঁয়াজ ২২ থেকে ২৩ টাকা কেজিতে বিক্রি হলেও এক সপ্তাহের মধ্যে আরও দাম কমার সম্ভাবনা রয়েছে।

হিলি অগ্রণী ব্যাংক ম্যানেজার আফতাবুজ্জামান বলেন, তার ব্যাংক থেকেও খান ট্রেডার্স ২৫০ মার্কিন ডলারে পেঁয়াজের এলসি করেছে।

হিলির খুচরা বিক্রেতা আনোয়ার হোসেন জানান, পেঁয়াজের বাজার মনিটরিং না করা হলে আমদানিকারকরা বেশি দামে বিক্রি করলে তাদেরও বেশি দামে খুচরা বাজারে বিক্রি করতে হবে। তাই তারা স্থানীয় প্রশাসনের নজরদারীর দাবি করেন।

আমদানিকারকরা জানান, ভারতে পেঁয়াজ সংকটের কারণে দফায় দফায় পেঁয়াজের রফতানি মূল্য বৃদ্ধি করে ভারতীয় কৃষিপণ্য মূল্য নির্ধারণকারী সংস্থা “ন্যপেড”। গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসের মাঝামাঝি পেঁয়াজের রফতানি মূল্য সাড়ে ৩শ' ডলার থেকে বাড়িয়ে ৮৫২ মার্কিন ডলার নির্ধারণ করে সংস্থাটি। এরপরও হিলি স্থলবন্দর দিয়ে তেমন কমেনি ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি।

অবশেষে অভ্যন্তরীণ বাজারে পেঁয়াজের সংকট ও মূল্যবৃদ্ধির কারণ দেখিয়ে গত বছরের ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দেয় ভারত সরকার। ফলে বাংলাদেশের বাজারে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে থাকে পেঁয়াজের দাম। প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম ২৫০ টাকা পর্যন্ত উঠে।

পিএনএস/হাফিজ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন