নাসিম হত্যার প্রধান আসামি আসিফ গ্রেফতার

  


পিএনএস ডেস্ক: রাজধানীর মধ্য বাড্ডায় বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) নিয়ে বসা জুয়ার আসরে বাধা দেয়ায় নাসিম আহমেদ ইমাদ উদ্দিন খুনের ঘটনায় প্রধান আসামি আসিফ শিকদারকে (২১) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকে বুধবার ভোর পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে কুমিল্লা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

বিপিএল নিয়ে বসা জুয়ার আসরে বাধা দেয়ায় গত ৯ নভেম্বর সকালে খুন হন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নাসিম।

এ ঘটনায় নাসিমের বাবা আলী আহমেদ সাইফুদ্দীন বাদী হয়ে রাতেই বাড্ডা থানায় মামলা করেন।

মামলায় আবদুর রশিদ, রমজান ও আসিফ নামে স্থানীয় তিন যুবক ছাড়াও অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে আসামি করা হয়।

এর আগে পুলিশ জানিয়েছিলো, রবিবার সন্ধ্যায় বোর্ড ঘরে বাজির আসরে বাধা দেওয়ার সময় স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী রমজান আলী, আসিফ, শহীদুল, রশিদ, মিলন ও রফিকসহ ১০/১২ জনের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। এদেরই কেউ এ হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে।

নাসিম হত্যার পর এলাকার অনেকেই আতঙ্কে আছেন। বিশেষ করে প্রত্যক্ষদর্শী লিমন ঘটনাটি দেখে ফেলায় সেও সন্ত্রাসীদের টার্গেটে রয়েছে বলে জানা গেছে।

লিমন বলেন, সোমবার সকাল ১০টার দিকে পোস্ট অফিস গলি দিয়ে কাজে যাচ্ছিলাম। দূর থেকে দেখতে পাই মিলন নামের একজন নাসিমকে সমানে ছুরি মারছে। দৌড় দিয়ে তাকে ধরতে পারিনি। ঘটনা দেখে ফেলায় ওরা আমাকেও হুমকি দিচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত সোমবার সকালে বাড্ডার পোস্ট অফিস গলিতে নিজ বাসার সামনে খুন হন নাসিম আহমেদ (২৩) নামের যুবক। তিনি মানারাত বিশ্ববিদ্যালয়ে বিবিএ তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন।

নিহত নাসিমের ছোট ভাই ইম্পেরিয়াল কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র নাবিল আহমেদ জানান, বিপিএল খেলা নিয়ে বোর্ড (ক্যারাম বোর্ড) ঘরে রমরমা জুয়ার আসর চলছিল। সেখানে সন্ধ্যার পর ক্যারাম খেলতেন ভাই নাসিম। গত রাতে নাসিম ক্যারাম খেলতে গিয়ে দেখেন বিপিএলের ম্যাচ নিয়ে মোটা অঙ্কের জুয়া চলছিল।

এতে বাধা দেন তিনি। বাধার মুখে রমজান আলী, আসিফ, রশিদ, শহীদুল ও রফিক নামে স্থানীয়দের সঙ্গে বাগবিতন্ডা হয় নাসিমের। ঘটনা হাতাহাতি পর্যন্তও গড়ায়। নাবিল জানান, বিষয়টি আপস করতে গেলে রমজান ও রশিদ মারধর করেন নাসিমের বাবাকে।

মহল্লার বড়ভাইরা বিষয়টি মীমাংসা করতে চেয়েছিলেন।কিন্তু সোমবার সকালে ভাইকে বাসার নিচে ছুরিকাঘাত করে আসিফ। তাকে সহযোগিতা করে রমজান ও রশিদ।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech