গাজীপুরে নারী শ্রমিকে গণধর্ষণের অভিযোগ

  

পিএনএস, কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি : গাজীপুর জেলার কালীগঞ্জ র্নিবাচনী পূবাইল এলাকায় এক কিশোরী পোশাক শ্রমিককে (১৩) গণধর্ষণের শিকার হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই শ্রমিকের বাড়ি ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জের দত্তপাড়া এলাকায়।

সে পূবাইল এলাকায় পরিবারের সঙ্গে বসবাস করে স্থানীয় শেষের কবিতা নামে একটি পোশাক কারখানায় ফিনিশিং হেলপার হিসেবে কাজ করতো।

ভিকটিমের পরিবারের লোকজন জানান, গত মঙ্গলবার ভিকটিম বাড়ি ফিরতে দেরী হওয়ায় তার পরিবারের লোকজন ওই দিন দিবাগত রাত ৮টার দিকে কারখানায় যোগাযোগ করেন। এসময় কারখানা কর্তৃপক্ষ জানায় ভোর পাঁচটায় পর কারখানা ছুটি হবে।

এ খবর শুনে তারা বাড়ি ফিরে যান। পরের দিন বুধবার সকালে ভিকটিমের পরিবারের লোকজন লোকমারফত মেয়ে ধর্ষণের খবর পায়। পরে পরিবারের লোকজন অভিযুক্ত ওই লম্পটের বাড়ির পাশে একটি নিবরস্থান থেকে তাকে আহতবস্থায় উদ্ধার করে গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

কারখানাটির ফিনিশিং শাখার এক শ্রমিক জানান, গত মঙ্গলবার দিবাগত রাত দুইটায় কারখানা ছুটি হলে সে ও ভিকটিম একসঙ্গে কারখানা থেকে বের হন। পরে কারখানার মূল ফটকের সামনে স্থানীয় হারিবাড়ীর টেক এলাকার মোমেন খন্দকার (৩৫) ও তার সহযোগী অজ্ঞাত কয়েক জন যুবক ভিকটিমকে জোড়পূর্বক তুলে নিয়ে যায়। এসময় সে বাধা দিলে তাকে মারধর করে হত্যায় হুমকি দেয়া ওই লম্পটেরা বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ভিকটিমের অভিযোগ, তিনি কারখানায় যাওয়া-আসার পথে দীর্ঘদিন ধরে পুবাইল এলাকার মোমেন খন্দকার তাকে নানা ধরণের কু-প্রস্তাব দিতো ও তাকে অনুসরণ করে কারখানা পর্যন্ত আসাতো।
অভিযুক্ত মোমেন খন্দকার জানান, একটি অসাধু চক্র তাকে ফাঁসানোর জন্য ধর্ষণের অভিযোগ তুলেছে।

শেষের কবিতা কারখানার ফিনিশিং ম্যানেজার মনোয়ার হোসেন জানান, তিনি ধর্ষণের খবর শুনেছেন। ওই কিশোরী শ্রমিককে কারখানায় কেন নিয়োগ দেওয়া হয়েছে আর গভীর রাতে নারী শ্রমিকদের কেনই বা ছুটি দেওয়া হয়েছিল এসব প্রশ্নের জবাবে তিনি কোন সদুত্তর দিতে পারেননি।

এ ব্যাপারে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) প্রণয় ভূষন দাস জানান, বুধবার সকালে ভিকটিমকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। বৃহস্পতিবার চিকিৎসা শেষে বিকেলে তাকে রিলিজ দেওয়া হয়েছে। ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। ভিকটিক ধর্ষিত হয়েছিল কি না এ ব্যাপারে শনিবার রিপোর্ট পেলে জানা যাবে।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech