ঝুল ঝাড়ুতে বেঁধে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, চৌকিদার বহিষ্কার

  

পিএনএস ডেস্ক :একুশে ফেব্রুয়ারি শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়, অর্ধনমিত রাখা হয়। টাঙ্গাইল জেলার মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদেও পতাকা উত্তোলন করা হয় এবার- তবে ঝুল ঝাড়ুতে বেঁধে!

এই নিয়ে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছে স্থানীয় সরকার প্রশাসন। পরিস্থিতি সামলাতে ইউনিয়ন পরিষদের এক চৌকিদারকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, একুশে ফেব্রুয়ারিতে টাঙ্গাইল জেলার গোপালপুর উপজেলার ১২ নম্বর মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদে ঝুল ঝাড়ুতে বেঁধে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে বিষয়টি পতাকা উত্তোলন কমিটির আহ্বায়ক গোপালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান আল মামুনকে অবহিত করা হলে তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) দিলরুবা শারমীনের নজরে আনেন।

বিষয়টি যাচাইয়ের জন্য ঘটনাস্থলে লোক পাঠান ইউএনও। ততক্ষণে ঝাড়ুতে বেঁধে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের ছবি ভাইরাল হয়ে যায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। তারপর ঝাড়ুটি সরিয়ে ফেলে কর্তৃপক্ষ।

উপজেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, ইউনিয়ন পরিষদের চৌকিদার নারায়ণকে সাময়িক বহিষ্কার এবং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হালিমুজ্জামানকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে গোপালপুর থানার ওসি হাসান আল মামুন জানান, ‘ওইদিনই চৌকিদার নারায়ণকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। জাতীয় পতাকার অসম্মান কোনোভাবে গ্রহণ যোগ্য নয়।’

উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলরুবা শারমীন বলেন, ‘ঘটনার পরপরই ‍সব চৌকিদারকে ডেকে আনি। একজনকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। চেয়ারম্যানকে শোকজ করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, চেয়ারম্যান হালিমুজ্জামান তালুকদারকে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠানো হয়েছে। দ্রুত জবাব দিতে বলা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে জাতীয় পতাকা উত্তোলন নিয়ে অবহেলার অভিযোগ করেছে স্থানীয়রা।

হালিমুজ্জামান তালুকদারের সঙ্গে কথা বলতে একাধিকবার তার মোবাইল ফোনে কল করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech