ছাত্রলীগ নেতার চড় মারার পর চট্টগ্রামের ব্যবসায়ীর মালামাল উধাও

  

পিএনএস ডেস্ক : আতঙ্ক পিছু ছাড়ছে না চট্টগ্রামের সেই ব্যবসায়ীর। ছাত্রলীগ নেতার মারধরের শিকার হয়ে মামলা করার পর থেকে ভয়ে নিজের বাসায় থাকছেন না। এবার তাঁর কার্যালয় থেকে কম্পিউটারের সিপিইউ এবং ক্লোজ সার্কিট (সিসি) ক্যামেরার রিসিভার খোয়া গেছে। এ ঘটনায় গত শনিবার রাতে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন তিনি। তবে তিনি কারও নাম উল্লেখ করেননি।

এ বিষয়ে গতকাল রোববার বিকেলে ব্যবসায়ী রাশেদ মিয়া বলেন, তাঁর সন্দেহ ছাত্রলীগ নেতা নুরুল আজিম ক্ষিপ্ত হয়ে এ কাজ করতে পারেন। তিনি বলেন, মামলার চার দিন পরও আজিমকে পুলিশ গ্রেপ্তার না করায় আতঙ্কে তাঁর দিন কাটছে। এখনো পরিবার নিয়ে আত্মীয়ের বাড়িতে থাকছেন, নিজের বাসায় ফিরে যাওয়ার সাহস পাচ্ছেন না।

চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিমের বিরুদ্ধে ২০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি ও মারধরের ঘটনায় ব্যবসায়ী রাশেদ মিয়া ১৯ এপ্রিল থানায় মামলা করেন। তিনি চট্টগ্রামের জিইসি এলাকার ইউনিভার্সিটি অ্যাডমিশন কোচিং সেন্টারের পরিচালক। তাঁকে মারধর করার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ার পর তোলপাড় সৃষ্টি হয়। সমালোচনার মুখে ১৯ এপ্রিল রাতেই দলীয় পদ থেকে সরে দাঁড়ান আজিম।

পুলিশ খুঁজে না পেলেও মামলার পর থেকে ফেসবুকে সক্রিয় ছিলেন আজিম। সর্বশেষ শনিবার বেলা পৌনে তিনটায় ফেসবুকে পোস্ট (মন্তব্য) দিয়েছিলেন তিনি। গতকাল তাঁর মুঠোফোনও বন্ধ পাওয়া গেছে।

পিএনএস/জে এ/মোহন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech