স্ত্রীকে হত্যা করে ঘুমিয়ে ছিলেন স্বামী

  

পিএনএস ডেস্ক : ঢাকার রামপুরার পূর্ব হাজীপাড়ার বউবাজার এলাকার এক বস্তি থেকে গতকাল রোববার রাতে নূপুর নামের এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তাঁকে শ্বাস রোধে হত্যা করা হয়েছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। এ অভিযোগে ওই গৃহবধূর স্বামী দুলালকে শেরপুর থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

পুলিশ বলছে, ছোট সংসার ছিল নূপুর (২১) ও মো. দুলালের। পাঁচ বছর বয়সী একমাত্র ছেলে মুন্নাকে নিয়ে তাঁরা ভাড়া থাকতেন ঢাকার রামপুরার পূর্ব হাজীপাড়ার বউবাজার এলাকার এক বস্তিতে। নূপুর ও দুলালের মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া হতো। এরই জের ধরে নূপুরকে হত্যা করে থাকতে পারেন দুলাল। তাঁকে আজ সোমবার ভোরে শেরপুরের শ্রীবর্দী থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গ্রেপ্তারের সময় নিজ বাড়িতে ঘুমাচ্ছিলেন দুলাল।

দুলালকে গ্রেপ্তার করে ঢাকায় আনা হচ্ছে—এ কথা জানিয়ে রামপুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এনামুল হক বলেন, দুলাল রামপুরা এলাকায় রিকশা চালাতেন। তাঁর স্ত্রী নূপুর বিভিন্ন বাসায় গৃহকর্মীর কাজ করতেন। গতকাল রাত ১২টার দিকে থানায় খবর আসে, নূপুরকে হত্যার করে তাঁর স্বামী দুলাল ঘরের দরজা তালা দিয়ে পালিয়ে গেছেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নূপুরের লাশ দেখতে পায়।

তাঁর দুই হাত বাঁধা ও গলায় ওড়না প্যাঁচানো ছিল। এরপর দুলালের গতিবিধি শনাক্ত করা হয়। অবস্থানের বিষয়ে নিশ্চিত হয়ে দুলালের গ্রামের বাড়ি অভিযান চালায় রামপুরা থানার পুলিশের একটি দল। আজ ভোরে অভিযানের সময় দুলাল তাঁর বাড়িতে ঘুমাচ্ছিলেন। সেখান থেকে গ্রেপ্তার করে আজ বিকেলের দিকে তাঁকে ঢাকায় আনা হবে।

হত্যার কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে ওসি এনামুল হক বলেন, নূপুর পরকীয়ায় জড়িত বলে সন্দেহ করতেন দুলাল। এ নিয়ে প্রায়ই পারিবারিক কলহ হতো। এর জের ধরে এই হত্যার ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে গতকাল সন্ধ্যার দিকে দুজনই একসঙ্গে কাজ শেষ করে তাঁদের ঘরে ঢোকেন। তাঁদের ছেলেটি পাশে মায়ের বাসায় থাকত। নূপুরের লাশ উদ্ধার করে আজ সকালে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech