শেরপুরে পৌর শ্রমিকলীগ নেতার দাঁত ভেঙে দিলেন সন্ত্রাসীরা

  

পিএনএস, শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি: বগুড়ার শেরপুরে পৌর শ্রমিকলীগের আহবায়ক সাইফুল ইসলামকে বেধড়ক মারপিটসহ তার দাঁত ভেঙে দিয়েছেন সন্ত্রাসীরা। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার (০৮ডিসেম্বর) দুপুরে শহরের স্থানীয় বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে এই হামলার ঘটনাটি ঘটে বলে জানা গেছে। উক্ত ঘটনায় শ্রমিকলীগের নেতাকর্মীদের মাঝে তীব্র ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। ফলে শহরজুড়ে বিরাজ করছে থমথমে অবস্থা। যে কোন সময় আবারও রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটতে পারে বলেও শঙ্কা দেখা দিয়েছে। এদিকে ঘটনাটি জানতে পেরে তাৎক্ষণিক পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পাশাপাশি দোষীদের আইনের আওতায় আনার আশ্বাস দেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শহরের স্থানীয় বাসষ্ট্যান্ডে সিএনজি চালিত অটোরিকসা ও ব্যাটারি চালিত অটোরিকসা রাখা নিয়ে উপজেলা জাতীয়তাবাদী শ্রমিকদলের দপ্তর সম্পাদক রফিকুল ইসলামের সঙ্গে পৌর শ্রমিকলীগের আহবায়ক সাইফুল ইসলাম বিরোধ দেখা দেয়। এরই জের ধরে গতকাল শনিবার দুপুরে এই দুই নেতার মধ্যে বাকবিত-া হয়। একপর্যায়ে তারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন।
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শ্রমিকলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই শ্রমিকদল নেতা রফিকুল ইসলাম ও তার সহযোগীরা তার ওপর হামলে পড়ে। এমনকি তাকে বেধড়ক মারপিট করাসহ মুখে আঘাত করে তাঁর বেশ কয়েকটি দাঁতও ভেঙে দিয়েছেন তারা। এরপর স্থানীয় লোকজন এসে তাঁকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে দেন বলে তিনি অভিযোগ করেন।

এদিকে অভিযুক্ত শ্রমিকদল নেতা রফিকুল ইসলামের বক্তব্য জানতে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে নিজেকে নির্দোষ দাবি করে বলেন, তিনি কাউকে মারপিট করেননি। বরং শ্রমিকলীগ নেতার লোকজনই তাকে মারপিট করেছে বলে তিনি দাবি করেন।

এ প্রসঙ্গে জানতে শেরপুর থানার দায়িত্বরত কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোর্শেদা বেগম জানান, ঘটনাটি মৌখিকভাবে থানায় জানানো হয়েছে। তবে কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech