দেশব্যাপী ভেজালের মচ্ছব চলছে

  

পিএনএস (মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম প্রধান) : ভেজালের রাজ্যে বসতি গড়েছি আমরা! সর্বত্র ভেজালের মচ্ছব চলছে। ফলে প্রশ্ন উঠছে, ভেজাল নেই কী সে? সত্যিই তো কী সে ভেজাল নেই, সেটা বলা মুশকিল। ভেজাল খেয়ে খেয়ে মানুষ নানা ধরনের জটিল-কঠিন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।ভেজালমুক্ত সমাজ গড়ায় আইন প্রয়োগের পাশাপাশি সবচেয়ে বেশি দরকার জনসচেতনতা সৃষ্টি।

নিত্যদিন যা খেয়ে মানুষ জীবন ধারণ করে এর বেশির ভাগেই ভেজাল! বিএসটিআই অনুমোদিত ৫২টি পণ্যে ভেজাল পাওয়া গেছে পরীক্ষাগারে। বাজারে বেশ চলা এসব পণ্যে ভেজাল আছে জানতে পেরে ভোক্তারা রীতিমতো শঙ্কিত। অনুমোদিত পণ্যে ভেজাল থাকলে অনুমোদনহীন পণ্যের অবস্থা কী, তা ভেবে কূল পাচ্ছে না সচেতন জনগোষ্ঠী।

যে পানির অপর নাম জীবন, সে পানিতেও ভেজাল! যে ওয়াসা সুপেয় পানির জোগান দেবে রাজধানীবাসীকে, সে পানিতেও দূষণ ও ভেজাল। রাজধানী ঢাকাকে ঘিরে থাকা চারপাশের নদ-নদীর পানিতে দূষণ। পানির রং বিবর্ণ শুধু নয়, কালচে আলকাতরার রূপ ধারণ করে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। ঢাকার মধ্যে থাকা জলাশয়গুলোরও একই অবস্থা।

খাদ্যদ্রব্যকে সতেজ রাখতে শাক-সবজি, ফল ও মাছ-গোশতে ব্যবহার করা হয় মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর দ্রব্য ফরমালিন। ফরমালিনযুক্ত খাবার খেয়ে মানুষ নানা ধরনের কঠিন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। যে কারণে কিডনি ডেমেজ/অকেজো হচ্ছে। শরীরে অনেক অঙ্গ হয়ে পড়ছে অকেজো। ক্ষতিকর জেনেও একশ্রেণীর ব্যবসায়ী ফরমালিন ব্যবহার করছে।

আমাদের দেশের বাতাসেও দূষণের মাত্রা অতিরিক্ত। তাছাড়া বাতাসে ক্ষতিকর সিসার মাত্রা আশঙ্কাজনক হারে বেড়ে গেছে। বাতাসে উড়ছে ধূলিবালি। এসব ধুলিবালি মানুষের নাকে-মুখে ঢুকছে। এসব দেখার যেন কেউ নেই। রাজধানীকে বাতাসদূষণ আরো বেশি। জনজীবনকে অতিষ্ঠ করে তুললেও এগুলো দেখার যেন কেউ নেই। অবশেষে এ ব্যাপারে কোর্ট সিটি করপোরেশনকে জবাবদিহির আওতায় আনার চেষ্টা করছেন।

আমাদের প্রশাসনেও ভেজাল ঢুকে গেছে। ভেজাল মুক্তিযোদ্ধার সনদধারী চার সচিবও মিলেছে। ইদানীং তথ্য পাওয়া গেছে সিআইডির প্রধানও নাকি ভেজাল মুক্তিযোদ্ধার সনদধারী! চট্টগ্রামে কদিন আগে ভুয়া ম্যাজিস্ট্রেট ও সাংবাদিক ধরা পড়েছে। এর আগে ভূয়া মেজরও ধরা পড়ার অনেক সংবাদ মিডিয়ায় আসে। এসব ভুয়া কাজ-কারবার আমাদের ঘিরে আছে। আর এর মধ্যেই আমাদের অসম বসতি।

কদিন আগে ওমর ফারুক নামের এক সিনিয়র সাংবাদিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লিখেছেন, ভেজালমুক্ত খাবার নিশ্চিত করা গেলে ৯০ শতাংশ রোগ থেকে মুক্তি মিলবে। বাজারে নাম প্রতিষ্ঠানের এবং বিএসটিআই অনুমোদিত ৫২টি পণ্যে ভেজাল পাওয়া যাওয়ায় সাংবাদিক সাহেবের মন্তব্য শতভাগ সত্যে পরিণত হলো বৈকি।

রাজধানীর বাইরের পানিতেও ভেজাল। চাপকলের পানিতে অদৃশ্য বিষ আর্সেনিক দূষণের মাত্রা অনেক বেশি। আমাদের খাবারে ভেজাল, বাতাসে ভেজাল, পানিতে ভেজাল, ভেজাল প্রশাসনে। ভেজাল এতটাই গতি পেয়ে গেছে যে, বিষও নাকি ভেজাল। এসব ভেজালের নাগপাশ থেকে নাগরিকদের মুক্ত করতে কোর্ট নড়েছড়ে বসেছেন। ভেজাল বিরোধী অভিযান চলছে পুরোদমে। তবে সবচেয়ে বেশি প্রযোজন জনসচেতনতা। জনসচেতনতাই পারে সমাজের এসব ভেজাল মুক্ত পরিবেশ সৃষ্টিতে কার্যকর অবদান রাখতে।

ভেজাল ও নিম্নমানের ওই ৫২টি খাদ্যপণ্যের তালিকা-

১. গ্রীণ ব্লিচিং এর সরিষার তেল,
২. শমনমের সরিষার তেল,
৩. বাংলাদেশ এডিবল ওয়েলের সরিষার তেল,
৪. কাশেম ফুডের চিপস,
৫. সিটি ওয়েলের তীর সরিষার তেল,
৬. আরা ফুডের ড্রিংকিং ওয়াটার,
৭. আল সাফির ড্রিংকিং ওয়াটার,
৮. মিজান ড্রিংকিং ওয়াটার,
৯. মর্ণ ডিউয়ের ড্রিংকিং ওয়াটার,
১০. ডানকান ন্যাচারাল মিনারেল ওয়াটার,
১১. আরার ডিউ ড্রিংকিং ওয়াটার,
১২. দিঘী ড্রিংকিং ওয়াটার,
১৩. প্রাণের লাচ্ছা সেমাই,
১৪. ডুডলি নুডলস,
১৫. শান্ত ফুডের সফট ড্রিংক পাউডার,
১৬. জাহাঙ্গীর ফুড সফট ড্রিংক পাউডার,
১৭. ড্যানিশের হলুদের গুড়া,
১৮. প্রাণের হলুদ গুড়া,
১৯. ফ্রেশের হলুদ গুড়া,
২০. এসিআইর ধনিয়ার গুড়া,
২১. প্রাণের কারি পাউডার,
২২. ড্যানিশের কারী পাউডার,
২৩. বনলতার ঘি,
২৪. পিওর হাটহাজারী মরিচ গুড়া,
২৫. মিস্টিমেলা লাচ্ছা সেমাই,
২৬. মধুবনের লাচ্ছা সেমাই,
২৭. মিঠাইর লাচ্ছা সেমাই,
২৮. ওয়েল ফুডের লাচ্ছা সেমাই,
২৯. এসিআইর আয়োডিন যুক্ত লবন,
৩০. মোল্লা সল্টের আয়োডিন যুক্ত লবন,
৩১. কিং’য়ের ময়দা,
৩২. রুপসার দই,
৩৩. মক্কার চানাচুর,
৩৪. মেহেদীর বিস্কুট,
৩৫. বাঘাবাড়ীর স্পেশাল ঘি,
৩৬. নিশিতা ফুডস এর সুজি,
৩৭. মধুবনের লাচ্ছা সেমাই,
৩৮. মঞ্জিলের হলুদ গুড়া,
৩৯. মধুমতির আয়োডিন যুক্ত লবন,
৪০. সান ফুডের হলুদ গুড়া,
৪১. গ্রীন লেনের মধু,
৪২. কিরনের লাচ্ছা সেমাই,
৪৩. ডলফিনের মরিচের গুড়া,
৪৪. ডলফিনের হলুদের গুড়া,
৪৫. সূর্যের মরিচের গুড়া,
৪৬. জেদ্দার লাচ্ছা সেমাই,
৪৭. অমৃতের লাচ্ছা সেমাই,
৪৮. দাদা সুপারের আয়োডিনযুক্ত লবণ,
৪৯. মদীনার আয়োডিনযু্ক্ত লবন,
৫০. স্টারশীপ আয়োডিনযুক্ত লবণ
৫১. তাজ আয়োডিনযুক্ত লবণ,
৫২. নূর স্পেশাল আয়োডিনযুক্ত লবন।

প্রতিবেদক : বিশেষ প্রতিনিধি- পিএনএস

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech