খাগড়াছড়িতে মেয়েকে ধর্ষণে স্বামীকে সহযোগিতা স্ত্রীর!

  

পিএনএস ডেস্ক : খাগড়াছড়ির রামগড়ে মায়ের সহযোগিতায় এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে বাবার বিরুদ্ধে। ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর দিনমজুর বাবা (৪৩) পলাতক রয়েছেন।

স্থানীয়রা বৃহস্পতিবার রাতে মা-মেয়েকে থানায় নিয়ে আসলে পুলিশের কাছে বাবার হাতে যৌন নির্যাতনের বর্ণনা দেয় ওই ছাত্রী। সে জানায়, একাজে তার বাবাকে সহযোগিতা করতো তারই মা।

ওই ছাত্রী জানায়, তার বাবা ২ জুলাই রাতে প্রথম তাকে ধর্ষণ করে। একইভাবে আরও ২-৩বার ধর্ষণের শিকার হয় সে। মেয়েটি বাবার পা ধরে ক্ষমা চেয়েও ধর্ষণের হাত থেকে নিজেকে বাঁচাতে পারেনি।

মেয়েটি জানায়, সে চিৎকার চেঁচামেচি করতে চাইলে মা তার মুখ চেপে ধরতো। ধর্ষণের কথা প্রকাশ করলে তাকে গলাটিপে হত্যা করে লাশ বস্তায় ভরে মাটিতে পুঁতে ফেলারও ভয়ভীতি দেখাতো তার বাবা।

সে বলে, ঘটনাটি প্রথমে তার দাদিকে জানায়। কিন্তু দাদি কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় গত ১৪ জুলাই তার চাচাকে বিষয়টি জানায়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. আবদুল হান্নান বলেন, বিষয়টি জানার পর মেয়ের মুখে অভিযোগ শুনে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে মেয়ে ও তার মাকে থানায় নিয়ে আসেন তারা।

রামগড় থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মনির হোসেন বলেন, মেয়ে ও তার মাকে প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। মেয়েটি একাধিকবার তার বাবার হাতে ধর্ষণের শিকার হওয়ার অভিযোগ করেছে। তার মা বিষয়টি স্বীকার করেছেন।

তিনি আরও বলেন, ধর্ষককে আটকের চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech