বাড্ডায় গণপিটুনিতে নারী হত্যায় আটক ৩

  

পিএনএস ডেস্ক: রাজধানীর উত্তর পূর্ব বাড্ডায় গণপিটুনি দিয়ে তাছলিমা বেগম রেনু নামে এক নারীকে হত্যার ঘটনায় ৩ যুবককে আটক করেছে পুলিশ। এরা হলেন- জাফর, শাহীন ও বাপ্পী।

শনিবার (২১ জুলাই) মধ্যরাতে মোবাইল ফুটেজ দেখে তাদের আটক করা হয়।

বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ‘প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৩ যুবককে বাড্ডা থেকে আটক করা হয়েছে।’

ওসি বলেন, ‘ঘটনার প্রেক্ষাপট, ঘটনায় জড়িত এবং পেছনের রহস্য জানতেই তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের গ্রেফতার দেখানো হবে।’

এছাড়া এ ঘটনায় আরও বেশ কয়েকজনকে আটকের জন্য পুলিশ মাঠে কাজ করছে বলে জানান ওসি।

গত শনিবার (২০ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বাড্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যান তাছলিমা। এসময় স্কুলের গেইটে থাকা অভিভাবকরা তার কাছে ভেতরে যাওয়ার কারণ জানতে চাইলে তাছলিমা জানান, তিনি তার সন্তানকে স্কুলে ভর্তি করতে এসেছেন। তাছলিমার কথাবার্তা সন্দেহজনক মনে হলে তাকে প্রধান শিক্ষিকার কাছে নেয়া হয় এবং নাম-পরিচয় জানতে চাওয়া হয়।

ঠিক একইসময়ে স্কুলে ছেলেধরা এসেছে- এমন খবর ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় লোকজন বাঁশের বাজারসহ আশপাশের এলাকার অবস্থান নেয়। কিছুক্ষণ পর তাছলিমা প্রধান শিক্ষিকার কক্ষ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় জড়ো হওয়া লোকজন তাকে ধরে স্কুলের সামনেই গণপিটুনি দেয়।

নিথর অবস্থায় পুলিশ তাছলিমাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওই ঘটনায় তাছলিমার ভাগ্নে সৈয়দ নাসির উদ্দিন টিটু বাদী হয়ে অজ্ঞাতপরিচয় আসামিদের বিরুদ্ধে বাড্ডা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

প্রসঙ্গত, প্রায় আড়াই বছর আগে স্বামীর সঙ্গে ডিভোর্স হওয়ার পর থেকে কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীনতায় ভুগছিলেন তাছলিমা। তার ১১ বছরের একটি ছেলে ও ৪ বছরের একটি মেয়ে রয়েছে। ছেলে বাবার কাছে ও মেয়েটি থাকতো মায়ের কাছে।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech