গণপূর্ত অধিদপ্তরের কয়েকটি ই/এম ডিভিশনে কোটেশন বাণিজ্য চলছে অতি প্রকাশ্যেঃ দেখার কেউ নেই - (পর্ব-২)

  

পিএনএস (মো: শাহাবুদ্দিন শিকদার) : গণপূর্ত অধিদপ্তরের কয়েকটি চিহ্নিত ই/এম ডিভিশনে কোটেশন বাণিজ্য চলছে অতি প্রকাশ্যে। এই সমস্ত চিহ্নিত দুর্নীতিগ্রস্থ ই/এম ডিভিশনে ঘণ্টা খানেক ঘুরাফিরা করলেই নিশ্চিত কোটেশন বাণিজ্যের হাট-বাজার আপনার নজর কাড়বে। পর্দা কাণ্ড, চাঁদর বাণিজ্য, ২০ কোটি টাকার চেক বাণিজ্য গণপূর্ত অধিদপ্তরের মান-ইজ্জত ক্ষুণ্ণ করলেও কয়েকটি চিহ্নিত দুর্নীতিগ্রস্থ ই/এম ডিভিশন হচ্ছে গণপূর্ত অধিদপ্তরের দুর্নীতির সুড়ংগ পথ যেখান দিয়ে সুড়সুড় করে বেরিয়ে যায় গণপূর্ত অধিদপ্তরের অর্থ-কড়ি। ২০ কোটি টাকার চেক এবং স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করে ঘুষ লেদেনকারী শীর্ষ কর্মকর্তার ব্যাপারে পাণ থেকে চুন খসলেই এই ই/এম সার্কেল ও ডিভিশনের কয়েকজন কর্মকর্তা দেন-দরবার শুরু করে। তাঁদের হাতে থাকা কাঁচা টাকা দিয়ে ম্যানেজ করে ফেলে সংশ্লিষ্ট সবাইকে। যে সমস্ত কর্মকর্তা এই ম্যানেজের দায়িত্বে নিয়োজিত সেই সমস্ত কর্মকর্তার কক্ষ ফাঁসির আসামির সেলের মতো দিনে দুপুরেও তালা লাগানো থাকে। কেউ গেলে জিজ্ঞাসাবাদ ও তল্লাশী স্বাপেক্ষে প্রবেশের অনুমতি মেলে। এই দুর্নীতিগ্রস্থ ই/এম ডিভিশনে আবার মাসোহারার ভিত্তিতে বিভিন্ন পেশার নামধারী কিছু দালাল রয়েছে দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কিছু লিখলেই এই দালালরা ফোন করে ম্যানেজ করার দেন-দরবার শুরু করে। এরা কিছু সন্ত্রাসীও লালন-পালন করে। হুমকী-ধামকী দেওয়া এই সন্ত্রাসীদের কাজ।

অভিযোগকারীদের মতে, চিহ্নিত দুর্নীতিগ্রস্থ ই/এম ডিভিশনগুলোর অনিয়ম সম্পর্কে গণপূর্ত অধিদপ্তর, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়, দুর্নীতি দমন কমিশন এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনেক অভিযোগ জমে আছে। গণপূর্ত অধিদপ্তরের শৃংখলা শাখায়ও নথিতে ধুলো পড়ে যাচ্ছে কিন্তু তাঁদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গৃহীত হচ্ছে না। এই নথিগুলো ধামাচাপা দিয়ে রাখার বিনিময়ে সংশ্লিষ্টদের নিয়মিত নজরানা দেওয়া হয়ে থাকে।

অভিযোগকারীরা জানান, গণপূর্ত অধিদপ্তরে চিহ্নিত দুর্নীতিগ্রস্ত ই/এম ডিভিশনগুলোর কোটেশনের আওতায় সম্পাদিত কাজগুলো আসলেই হয়েছে কিনা এবং হলে কতোটা হয়েছে তা খালি চোখেই অনুধাবন করা যায়। তারপরেও বিধিমোতাবেক মন্ত্রণালয়ের অধীনে একটি শক্তিশালী তদন্ত সেল গঠণ করলে অভিযোগগুলো প্রমাণিত হবে। এই অভিযোগগুলো প্রমাণিত হলে শুধু সরকারের টাকার অপচয়ই কমবে না বরং গণপূর্ত অধিদপ্তরের বৈদ্যুতিক/ যান্ত্রিক কাজের গুণগতমানের ইতিবাচক পরিবর্তন ঘটবে। আগে গণপূর্ত অধিদপ্তরের ই/এম বিভাগের কাজের সুনাম ছিল কিন্তু দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গৃহীত না হওয়ায় এবং কোটেশন বাণিজ্য বৃদ্ধি পাওয়ায় বর্তমানে ইমেজ সংকটে ভুগছে।

অভিজ্ঞমহল এ ব্যাপারে গৃহায়ন প্রতিমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সকলের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। (চলবে)

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন