ইসলামী ব্যাংকের যাকাত ফান্ড নিয়ে ভাইস চেয়ারম্যানের বক্তব্য বিভ্রান্তিকর

  



পিএনএস ডেস্ক: ইসলামী ব্যাংকের যাকাত ফান্ডের টাকা প্রসঙ্গে ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যানের বক্তব্য বিভ্রান্তিকর বলে মন্তব্য করেছেন ব্যাংকটির চেয়ারম্যান আরাস্ত খান।

বৃহস্পতিবার মতিঝিলে ইসলামী ব্যাংক টাওয়ারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে আরাস্ত খান বলেন, ভাইস চেয়ারম্যান যে কথা ফেসবুকে লিখেছেন তার কোনো ভিত্তি নেই।

তিনি বলেন, ‘ব্যাংকের যাকাত ফান্ড থেকে ৪শ’ ৫০ কোটি টাকা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর যাকাত ফান্ডে প্রদানের কোনো সিদ্ধান্ত বোর্ড সভায় গৃহীত হয়নি। এ পরিমাণ টাকা ব্যাংক মুনাফাও করতে পারেনি।’

তিনি আরাস্তু খান বলেন, ‘ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ আহসানুল আলম পারভেজ ব্যাংকের একজন পরিচালক হয়ে মনগড়া বক্তব্য দিতে পারেন না। তার পদত্যাগ নিয়ে ব্যাংকের পক্ষ থেকে কোনো চাপ নেই। তবে তিনি স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করতে পারেন।’

তিনি বলেন, আমাদের ব্যাংকে যে পরিমাণ সিএসআর’র টাকা রয়েছে তা অনেক ব্যাংকের লাভও হয়না। এটা বাংলাদেশের অনেক মানুষের বিশ্বাসের জন্য হয়েছে। তাই এ খাত থেকে আমরা ১৫ কোটি টাকা প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট ফান্ডে দিয়েছি।

আরাস্ত খান আরো বলেন, ‘আমরা এ পর্যন্ত ৩ শ’ ৪৭ কোটি টাকা যাকাত দিয়েছি। বর্তমানে আমাদের যাকাত ফান্ডে ২৭ দশমিক ৮৪ কোটি টাকা আছে। তাহলে কীভাবে আমরা এত টাকা যাকাত ফান্ডে দিয়েছি।’

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল হামিদ ভুইয়া সহ ব্যাংকের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

প্রসঙ্গত, গত ১১ মে বৃহস্পতিবার সৈয়দ আহসানুল আলম পারভেজ ইসলামী ব্যাংক নিয়ে নিজের ফেসবুক প্রোফাইলে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে লিখেন, ‘অশুভ শক্তির ইশারায় আমার শত চেষ্টার পরেও রাষ্ট্রবিরোধী শক্তি পুনর্বাসিত হয়েছে এবং জাতির পিতার খুনিদের সাথে সংশ্লিষ্টরা ফিরে আসছেন নেতৃত্বে। আগামী বৎসর এই ব্যাংকটিকে রাষ্ট্রবিরোধী কাজে ব্যবহার করার নীল নকশা সম্পাদন হচ্ছে। ইসলামী ব্যাংক আবারও স্বাধীনতা বিরোধীদের হাতে চলে গেছে।’

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech