ঈদ সামনে রেখে মসলার বাজারে আগুন

  

পিএনএস ডেস্ক: ঈদ সামনে রেখে এলাচ, লবঙ্গ, দারুচিনি, জিরা, আলুবোখারাসহ বেড়েছে সব ধরনের মসলার দাম। একই সঙ্গে বেড়েছে কিশমিশের দাম। তবে পেঁয়াজের দাম কিছুটা কমেছে। সপ্তাহের ব্যবধানে আমদানি করা রসুনের দাম অর্ধেকে নেমেছে।

ব্যবসায়ীরা জানান, ঈদে মসলার বাড়তি চাহিদা রয়েছে। পাশাপাশি আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বেশি। এ কারণে মসলার দাম বেড়েছে।

বাজারে বেশি চাহিদার মসলা খুচরায় জিরার দাম কেজিতে গড়ে ৬০ টাকা বেড়ে ৪৫০ থেকে ৫০০ টাকা হয়েছে। এলাচ কেজিতে ১০০ টাকা বেড়ে ১ হাজার ৪০০ থেকে ২ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। দারুচিনি কেজিতে ৫০ টাকা বেড়ে ৩৮০ থেকে ৪৫০ টাকা হয়েছে। আলুবোখারা কেজিতে ১০০ টাকা বেড়ে ৫০০ থেকে ৫২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া কিশমিশ কেজিতে ৫০ টাকা বেড়ে ৩৫০ থেকে ৪০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

কারওয়ান বাজারের রামগঞ্জ স্টোরের খুচরা বিক্রেতা জাকির হোসেন বলেন, মসলার বাজার গুটিকয়েক আমদানিকারকের নিয়ন্ত্রণে থাকায় তাদের ওপর নির্ভর করছে বাজার দাম। ক্রেতারা অভিযোগ করেন, ঈদ ঘিরে সব সময় মসলার দাম বাড়াতে থাকেন ব্যবসায়ীরা।

এদিকে রাজধানীর বাজারে পেঁয়াজ ও রসুনের দাম কমেছে। কেজিতে ৩ টাকা কমে দেশি পেঁয়াজ প্রতিকেজি ২৮ থেকে ৩২ টাকা ও আমদানি করা ভারতীয় পেঁয়াজ ২০ থেকে ২৫ টাকা। রোজার শুরুতে রসুনের দাম বাড়তে বাড়তে প্রতি কেজি চীনা রসুন ৪০০ টাকায় পৌঁছে। এখন তা অর্ধেক কমে ১৮০ থেকে ২০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ভারতীয় রসুন কেজিতে ৩০ টাকা কমে ১২০ থেকে ১৫০ টাকা ও দেশি রসুন কেজিতে ২০ টাকা কমে ১১০ টাকায় বিক্রি করছেন বিক্রেতারা।


পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech