তবু্ও কমতি নেই পাট পণ্য মেলায়

  


পিএনএস ডেস্ক: পাট পণ্যের বাজার সম্প্রসারণে রাজধানীতে আয়োজন করা হয়েছে দুইদিন ব্যাপী পাট পণ্য মেলার। নান্দনিক ডিজাইন আর বাহারি পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসেছেন উদ্যোক্তারা। তবে দাম বেশি হওয়ায় আগ্রহ হারাচ্ছেন ক্রেতারা। বিশ্ববাজারে পণ্য সম্প্রসারণে দূতাবাসগুলোর উদ্যোগে পাট পণ্য মেলার আয়োজনের আহ্বান জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

শাড়ি থেকে শুরু করে পায়ের জুতো। সবই মিলবে সোনালি আঁশ পাটের সুতোয় বোনা বাহারি সব ডিজাইনে। নান্দনিক সব পণ্য খুঁজতে তাই এক স্টল থেকে অন্য স্টলে ভীর সব বয়সী মানুষের। ঘর সাজানোর দরকারি সব পণ্যেও মিলবে পাট পণ্যের মেলায়। তবে দাম কিছুটা বেশি হওয়ায় হতাশ ক্রেতারা।

একজন ক্রেতা বলেন, 'জিনিসগুলো অনেক সুন্দর কিন্তু দাম অনেক বেশি।'

একজন বিক্রেতা বলেন, 'এখানে আমরা শাড়ি, ওড়না, জুটের কার্পেট ইত্যাদি আমরা নিয়ে এসেছি।'

আরেকজন বিক্রেতা বলেন, 'পাটের যে জুতো হতে পারে সেটা অনেক আরামদায়ক ও সময় উপযোগী।'

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় পাট দিবস উপলক্ষে আয়োজন করা হয়েছে দুই দিনব্যাপী পাট পণ্যের মেলার। উদ্যোক্তারা বলছেন, উৎপাদন খরচ বেশি হওয়ায় পণ্য সহজলভ্য করতে পারছেননা তারা। সেই সাথে পণ্যের বহুমুখীকরণ ও নতুন উদ্যোক্তাদের প্রশিক্ষণের দাবি জানান তারা।

একজন উদ্যোক্তা বলেন, 'র মেটেরিয়ালসের ডেভেলপমেন্ট করতেই হবে এতে কোনো বিকল্প নেই। আমাদের ইফিসিয়েন্সের জন্য সরকারের কাজ করতে হবে।'

বিশ্ববাজারে বাংলাদেশি পাট পণ্যের সম্প্রসারণে পণ্যের গুণগত মান বৃদ্ধির পাশাপাশি, দূতাবাসগুলোকে আরো সক্রিয় ভূমিকা রাখার পরামর্শ সংশ্লিষ্টদের।

গেল অর্থবছরে পাট ও পাটজাত পণ্য রফতানি করে ৬৬ কোটি ডলার আয় করেছে বাংলাদেশ। যা আগের অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ১৭ দশমিক ৩৬ শতাংশ বেশি।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech