বেরোবিতে নীল দলের মানববন্ধন

  

পিএনএস, বেরোবি প্রতিনিধি : রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববদ্যিালয়ের (বেরোবি) উপাচার্য ডক্টর নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ'র স্বেছাচারিতার অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মঙ্গলবার দুপুরে এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মুক্তিযুদ্ধ ও শেখ মুজিবুর রহমানের চেতনা, আদর্শ ও মূল্যবাধে বিশ্বাসী শিক্ষকদের সংগঠন নীল দল মানববন্ধন করে।

মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ অভিযোগ জানানো হয়েছে। তবে উপাচার্য ডক্টর নাজমুল আহসান মুঠোফোনে বলেন, যে কোনো দাবি আদায়ে গণতান্ত্রিক পন্থায় কর্মসূচির ব্যাপারে জোর সমর্থন করেন তিনি।

মানববন্ধনে শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. তুহিন ওয়াদুদ বলেন, ‘উপাচার্য কাউকে দায়িত্ব না দিয়ে ব্যক্তিগত কাজে দিনের পর দিন বাইরে থাকা বন্ধ না করলে তার বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। তিনি বলেন, ‘মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও আচার্য কর্তৃক তাকে দেওয়া নিয়াগপত্রের ১ ধারায় উল্লখ করা হয়েছে । তিনি( উপাচার্য ডক্টর নাজমুল আহসান) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসাবে সার্বক্ষণিক ক্যাম্পাস অবস্থান করবেন। তিনি(উপাচার্য ডক্টর নাজমুল আহসান) রাষ্ট্রপতি ও আচার্য’র দেওয়া চিঠির নিয়োগ শর্ত লংঘন করে চলছেন।

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানী বলেন, ‘উপাচার্য পদের চেয়ে তিনি অনারারি ক্যাপ্টেন পদের বেশি গুরুত্ব দেন। এর মধ্যে তিনি উপাচার্য পদের অমর্যাদা করেছেন। গোলাম রব্বানী তাঁর এসব কাজের তীব্র নিন্দা জানান।

উল্লেখ্য, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক রিপুল কবিরকে সাক্ষাৎকার পত্র না দেওয়ার ঘটনাকে অমানবিক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে জঘন্যতম উল্লেখ করে নীল দলের পক্ষ থেকে রেজিস্ট্রারের মাধ্যমে উপাচাযর্কে গতকাল সকালে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ পত্র দেওয়া হয়েছে।

তবে উপাচার্য আজ মঙ্গলবার সন্ধায় মুঠোফোনে বলেন, ‘যে কেউ তাদের দাবি উথ্থাপনের জন্য গণতান্ত্রিকভাবে প্রতিবাদ-মানববন্ধন-সমাবেশ করতে পারেন। এতে সবার পূর্ণ স্বাধীনতা আছে। তিনি এসব অভিযোগের ভিত্তিতে বলেন, আমি বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজেই বাইরে যাই। ব্যক্তিগত কাজে যাইনা। ১৩ টি পদে থাকা নিয়ে তিনি বলেন, এর আগের উপাচার্য ২৮ টি পদে ছিলেন। তবে উপ-উপাচার্য, ট্রেজারপার পদে নিয়োগের বিষয়ে তিনি বলেন, এটা আমার এখতিয়ারভুক্ত নয়। মহামান্য রাষ্ট্রপতি যা করবেন তাই। এছাড়া মেয়র প্রার্থী রাশেক রহমানের নির্বাচনী প্রচারণার বিষয়ে তিনি সরাসরি অস্বীকার করেন।

মানববন্ধনটি সঞ্চালনা করেন নীল দলের সাধারণ সম্পাক ও একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টমস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আপেল মাহমুদ। এ সময় ইপস্থিত ছিলেন, নীল দলের সভাপতি ও বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. শফিক আশরাফ এর সভাপতিত্বে বক্তব্য প্রদান করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. তুহিন ওয়াদুদ, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক, ইতিহাস ও প্রততত্ত্ব বিভাগের সহকারী অধ্যাপক গোলাম রব্বানী, একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টম্স বিভাগের বিভাগীয় প্রধান শাহীনুর রহমান এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষক এ টি এম জিন্নাতুল বাসার।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech