রাবির পরীক্ষা কমিটিতে ১০ বছর নিষিদ্ধ দুই শিক্ষক

  

পিএনএস ডেস্ক : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষের চারুকলা অনুষদের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক দু’টি প্রশ্ন রাখার দায়ে অনুষদের ডিনসহ দুই শিক্ষককে সকল পরীক্ষা কার্যক্রম থেকে ১০ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়। এছাড়া আইনগত বাধা না থাকলে ডিনকে অব্যাহতি দেয়ার সিদ্ধান্তও নেয় কর্তৃপক্ষ।

বুধবার রাতে অনুষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৭৪তম সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত অনুমোদন হয়।

পরীক্ষা কার্যক্রম থেকে অব্যাহতিপ্রাপ্ত শিক্ষকরা হলেন- চারুকলা অনুষদের ডিন ও গ্রাফিক ডিজাইন, কারুশিল্প ও শিল্পকলার ইতিহাস বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক মো. মোস্তাফিজুর রহমান এবং চিত্রকলা, প্রাচ্যকলা ও ছাপচিত্র বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. জিল্লুর রহমান।

এদের মধ্যে প্রশ্ন প্রণয়নকারী জিল্লুর রহমান ‘সহযোগী অধ্যাপক’ পদে পদন্নোতি পাবেন নির্ধারিত সময়ের পাঁচ বছর পর।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রাবির সিন্ডিকেট সদস্য আখতার ফারুক ও মো. মামুন আব্দুল কাইউম জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুস সোবহানের সভাপতিত্বে বুধবার রাতে সিন্ডিকেট সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় চারুকলা অনুষদের ভর্তি পরীক্ষায় 'সাম্প্রদায়িক প্রশ্ন' রাখার বিষয়টিও আলোচনা হয়। গত ২৫ অক্টোবর অনুষ্ঠিত চারুকলা অনুষদভুক্ত 'আই' ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নে 'পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ গ্রন্থের নাম কী?' এবং 'মুসলমান রোহিঙ্গাদের উপর মায়েনমারের (মিয়ানমার) সেনাবাহিনী ও বৌদ্ধধর্মাবলম্বীরা সশস্ত্র হামলা চালায় কত তারিখে?' এমন দু’টি প্রশ্ন রাখা হয়। যা নিয়ে তীব্র সমালোচনা হয়।

বিষয়টি তদন্তের জন্য গত ২৮ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ রাবি উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহাকে আহ্বায়ক করে চার সদস্যের কমিটি গঠন করে। তদন্ত শেষে ওই কমিটি সুপারিশসহ সিন্ডিকেটে বিষয়টি উত্থাপন করে। তার ওপর ভিত্তি করে দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত অনুমোদন হয়।

যেহেতু ডিন নির্বাচিত একজন- তাই ডিন পদ থেকে তাকে অব্যাহতি দিতে আইনগত কোনো বাধা আছে কিনা তা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনজীবিদের সাথে কথা বলে পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত জানানো হবে। আর চারুকলার প্রশ্ন প্রণয়ন কমিটির অন্য সদস্যদের সতর্কমূলক চিঠি দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলেও জানান ওই সিন্ডিকেট সদস্যরা।

পিএনএস/জে এ /মোহন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech