রাবির দুই ছাত্রীকে উত্যক্ত, মুচলেকায় ছাড়

  

পিএনএস, রাবি সংবাদদাত : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) দুই ছাত্রীকে উত্যক্ত করার অভিযোগে দায়ে স্থানীয় এক যুবককে প্রথমে অবরুদ্ধ করে পরে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার রাত ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বিনোদপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ছাত্রীদের অভিযোগ- রাস্তায় কোন মেয়ে দেখলেই ওই যুবক তাদের উত্যক্ত করে।

অভিযুক্ত যুবকের নাম বুলবুল আহমেদ (৪০)। সে বিনোদপুরের ‘মাইশা ছাত্রীনিবাস’র মালিক মিঠুনের ছোট ভাই। অপর দিকে ভুক্তভোগী দুই ছাত্রী ‘মাইশা ছাত্রীনিবাস’র বর্ডার।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার সন্ধ্যায় বুলবুল দুইজন ছাত্রীকে খুব বাজে মন্তব্য করে। পরে ওই দুই ছাত্রী মেসের অন্যান্য ছাত্রীদের সহযোগীতায় বুলবুলকে অবরুদ্ধ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরকে খবর দেয়। বিষয়টি জানা জানি হলে পাশ্ববর্তী মেসের মেয়েরা সড়কে জড়ো হয়ে বুলবুলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ শুরু করে। খবর পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া ও সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু ঘটনাস্থলে যান এবং ওই যুবককে কান ধরে উঠবস করান। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এসে ছাত্রীদের এবং ওই বুলবুলের ভাইয়ের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি মীমাংসা করেন। এ সময় এ ধরনের কর্মকা- করবো না মর্মে বুলবুলের কাছ থেকে মুচলেকা নেওয়া হয়।
কয়েকজন ছাত্রী জানান, বুলবুল প্রায়ই এ ধরনের কাজ করেন। সে রাস্তায় কোন মেয়ে দেখলেই বাজে টোন (অশালীন মন্তব্য) করেন। তার এমন আচরণে মেয়েরা মেসের বারান্দায় পর্যন্ত যেতে পারে না। স্থানীয় ও মেস মালিকের ছোট ভাই হওয়ায় ভয়ে তাকে কেউ কিছু বলার সাহসও পায় না।

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, ‘বখাটে ওই যুবকের কাছ থেকে মুচলেকা নেওয়া হয়েছে। যদি ভবিষ্যতে সে এমন কাজ করে তবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনী প্রদক্ষেপ নেওয়া হবে।’

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech