লটারিতে স্কুলে ভর্তি নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

  

পিএনএস ডেস্ক : করোনা পরিস্থিতির কারণে ২০২১ শিক্ষাবর্ষে বিদ‌্যালয়গুলোতে ভর্তি পরীক্ষার বদলে লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। ভর্তির এ প্রক্রিয়া নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া ব‌্যক্ত করেছেন শিক্ষক ও অভিভাবকরা।

কোনো কোনো অভিভাবক বলছেন, লটারি পদ্ধতিতে তুলনামূলক কম মেধাবী শিক্ষার্থীরাও ভালো স্কুলে ভর্তির সুযোগ পাবে। রেজাল্টের ভিত্তিতে বা ভর্তি পরীক্ষার মাধ‌্যমে হলে সেটা সম্ভব হতো না।

কেউ বলছেন, লটারির ফলে তুলনামূলক পিছিয়ে পড়া স্কুলগুলো ভালো শিক্ষার্থী পাবে। এর ফলে বৈষম্য দূর হবে এবং স্কুলগুলোর মান ভালো হবে।

জানা গেছে, কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ইতোমধ্যে ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে। কারণ, তারা প্রতিষ্ঠানের মানের ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে ভালো শিক্ষার্থীদের বাছাই করতে চায়। সেটির পক্ষে সমর্থন আছে কিছু অভিভাবকেরও।

রাহিমা সুলতানা নামে মতিঝিল এলাকার এক অভিভাবক বলেন, ‘ভর্তির ক্ষেত্রে লটারি অপ্রাসঙ্গিক মনে হয়। মেধা-দক্ষতা-সৃজনশীলতার ভিত্তিতে শিক্ষার্থী নির্বাচন করা দরকার। ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থী নির্বাচনের ফলে কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যেমন যোগ্য শিক্ষার্থী পায়, ঠিক তেমনই শিক্ষার্থীরাও যোগ্য প্রতিষ্ঠান পায়। ভালো শিক্ষার্থীদের জন্য লটারি ব্যবস্থা হতাশাজনক।’

লটারির মাধ‌্যমে ভর্তির বিষয়ে কী নির্দেশনা আসবে, সেটি নিয়ে এখনো দ্বিধায় আছে স্বায়ত্তশাসিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো। বিশেষ করে সেন্ট যোসেফ, রেসিডেন্সিয়াল মডেল কলেজসহ কিছু প্রতিষ্ঠান নিজেরা বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেবে বলে জানা গেছে। তবে তারা চূড়ান্ত কী সিদ্ধান্ত নেবে, সেজন্য সরকারের ভর্তি সংক্রান্ত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল কলেজের অধ্যক্ষ ব্রিগেডিয়ার শামীম ফরহাদ বলেন, ‘আমরা ভর্তি ফরম ছেড়েছি দুই মাস আগে। তবে সরকার যেহেতু এবার লটারির মাধ্যমে ভর্তির ঘোষণা দিয়েছে, তাই আমাদের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে আরও কিছু দিন সময় লাগবে। লটারির বিজ্ঞপ্তি ও নির্দেশনা আসলে আমরা স্বায়ত্তশাসিত কলেজগুলো মিলে বৈঠক করব। তারপর সম্মিলিত সিদ্ধান্ত নেব। এখন ফাইনালি কিছু বলতে পারছি না।’

তবে যেকোনো পদ্ধতিতে ভর্তি নেওয়ার সব প্রস্তুতি আছে বলে জানান ব্রিগেডিয়ার শামীম ফরহাদ।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন