করোনার মধ্যে যে সুখবর পেলেন প্রাথমিকের শিক্ষকরা!

  

পিএনএস ডেস্ক: করোনার মধ্যে সুখবর পেয়েছেন দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকরা। এ শিক্ষকদের বেতন ১৪তম থেকে ১৩তম গ্রেডে উন্নীত করেছে সরকার। শুধু তাই নয়, এক্ষেত্রে শিক্ষকদের শিক্ষাগত যোগ্যতাও শিথিল করা হয়েছে।

বুধবার (৩ ফ্রেব্রুয়ারি) প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে এ বিষয়ে আদেশ জারি করা হয়েছে। সে আদেশে এমন সুখবর দিয়ে বলা হয়েছে, ‘সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা-২০১৯ জারির আগে নিয়োগ পাওয়া শিক্ষকদের মধ্যে যারা এখনও কর্মরত আছেন, তাদের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা শিথিলপূর্বক বেতন গ্রেড নির্ধারণে অর্থ বিভাগের সম্মতি জ্ঞাপন করা হলো। ফলে এখন থেকে সব শিক্ষক ১৩তম গ্রেডে (১১০০০-২৬৫৯০ টাকা) বেতন পাবেন।’

এখন আগের নিয়োগবিধি অনুযায়ী যারা সহকারী শিক্ষক হিসেবে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নিয়োগ পেয়েছেন, তাদেরও শিক্ষাগত যোগ্যতা নির্বিশেষে বেতন গ্রেড-১৩-এর সুবিধা দেওয়ার সিদ্ধান্তের আদেশ জারি হয়েছে। এতে দীর্ঘদিন ধরে যে জটিলতা সৃষ্টি হয়েছিল, সেটি দূর হলো বলে মনে করে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং শিক্ষকরা।

গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে দেশের সব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ও প্রশিক্ষণবিহীন সহকারী শিক্ষকদের বেতন গ্রেড ১৩তম করার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। একইসঙ্গে প্রশিক্ষণ পাওয়া ও প্রশিক্ষণবিহীন দুই ধরনের প্রধান শিক্ষকদের বেতন গ্রেড ১১তম করার সিদ্ধান্ত হয়। এতদিন প্রশিক্ষণ পাওয়া প্রধান শিক্ষকরা ১১তম গ্রেডে এবং প্রশিক্ষণবিহীন প্রধান শিক্ষকেরা ১২তম গ্রেডে বেতন পাচ্ছিলেন। অন্যদিকে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকরা ১৪তম গ্রেডে ও প্রশিক্ষণবিহীন শিক্ষকরা ১৫তম গ্রেডে বেতন পাচ্ছিলেন।

কিন্তু পরিবর্তিত নিয়োগবিধি ও যোগ্যতার কারণে বেতন নির্ধারণ করতে গিয়ে জটিলতার সৃষ্টি হয়। তাতে অসংখ্য শিক্ষক বঞ্চিত হতে যাচ্ছিলেন। কারণ, ২০১৯ সালের নিয়োগবিধি জারি হওয়ার আগে যে শিক্ষাগত যোগ্যতা ছিল, পরে তা বাড়ানো হয়। এ নিয়ে শিক্ষকদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

সহকারী শিক্ষকদের বেতন ১৩তম গ্রেডে দেওয়ায় অর্থ মন্ত্রণালয় ও প্রাথমিক শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে ধন্যবাদ জানিয়ে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সমিতির সভাপতি মাসুদ বলেন, দীর্ঘদিনের দাবির ফসল এটি। তিনি বলেন, শিক্ষকদের টাইমস্কেল বঞ্চিত নিয়ে হাইকোর্টের একটি নির্দেশনা রয়েছে। দ্রুত সময়ে এ দাবি পূরণ করার জন্য তিনি সরকারের কাছে দাবি জানান।


পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন