৩ মাস আগের ফেসবুক স্টেটাসেই ইঙ্গিত ছিল!

  

পিএনএস: প্রায় তিন মাস আগে ক্লোজ আপ তারকা সালমা সোশাল মিডিয়া ফেসবুকে একটি স্টেটাস দিয়েছিলেন। বুক হাহাকার করা সেই স্টেটাসের অর্থ সে সময় উদ্ধার করা যায়নি। শুধু বোঝা গিয়েছিল মা ও মেয়ের বিচ্ছেদের কথা। কিন্তু কোনোভাবেই মা ও মেয়ের বিচ্ছেদের অর্থ বোঝা সম্ভব হয়নি। কেন না সালমাকে সুখী সংসারী একটি মেয়ে হিসেবেই দেখছিলেন ভক্তরা। সে সময় সালমার ফেসবুক স্টেটাস নিয়ে কালের কণ্ঠ অনলাইন সংস্করণে ওরা আসলে মানুষরূপী জানোয়ার : সালমা শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়।

সাংকেতিক অর্থে ব্যবহৃত সেই স্টেটাস স্পষ্ট না হলেও সাম্প্রতিক সময়ে সালমার বক্তব্যে সেই স্টেটাসের অর্থ মোটামুটি পরিষ্কার হয়ে গেছে।

৭ সেপ্টেম্বর সালমা লিখেছিলেন, মা এমন একটা শব্দ যার তুলনা কোনোকিছুর সাথেই হয় না। যার মা নেই শুধু সেই মানুষ বলতে পারবে কি অভাব তাঁর জন্য। আর যে মা সন্তানহারা সেই মা জানে কি ব্যথা তাঁর বুকে। এই দুটি সম্পর্ক পৃথিবীর সব সম্পর্কের থেকেও বড়। মা আর সন্তানের মধুর সম্পর্ক।

এই স্টেটাসের মাধ্যমেই সন্তানের জন্য সালমার বুকের ভেতরের হাহাকার প্রকাশিত হয়, এটা সুস্পষ্ট। সালমার গণমাধ্যমের নিকট তুলে ধরা বিভিন্ন কথা থেকে এটা বোঝা যায় যে তিন মাস আগে থেকেই স্বামী শিবলীর সাথে সন্তান নিয়ে টানাপড়েন চলে আসছিল।

তিনি সে সময় লিখেছিলেন, যে মানুষের জন্য কোনো মা সন্তানহারা হয় আর যে মানুষের জন্য কোনো সন্তান মা হারা হয়, ওই মানুষগুলো আসলে পশু বললে ভুল হবে। ওরা অ্যাকচুয়ালি মানুষরূপে অমানুষ। আমরা ভাবি ওরা মানুষ। আসলে ওরা কোনোদিনই ছিল না। ওর এককথায় মানুষরূপী জানোয়ার।

শেষ বাক্যে আবেগপ্রবণ হয়ে লিখেছেন, মা, মা ও মাগো আমায় ছেড়ে তুমি কোথাও চলে যেও না।

তারমানে তিন মাস আগে থেকেই শিবলীর সাথে দ্বন্দ্বের শুরু এবং সন্তান কার কাছে থাকবে সে নিয়ে ঝামেলা তৈরি হয়। সম্ভবত তাদের কন্যা স্নেহাকে শিবলী তখন নিজের নিকট নিয়ে রেখেছিলেন। সালমাও সম্প্রতি তিন মাস পূর্ব থেকেই ঝামেলার বিষয়টি গণমাধ্যমের কাছে বলেছেন। যদিও শিবলী সালমার অযত্ন-অবহেলার কথা উল্লেখ করে সন্তানকে নিজের কাছে রাখার বিষয়টি উল্লেখ করেছিলেন।

সম্প্রতি কণ্ঠশিল্পী সালমা ও স্বামী শিবলী সাদিকের সাথে বিচ্ছেদ হয়। ২০ নভেম্বর বিচ্ছেদ হলেও প্রায় ৬ দিন পর এ কথা গণমাধ্যমে আসে।



পিএনএস/বাকিবিল্লাহ্

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech