সালমানের মৃত্যু নিয়ে ফের তদন্ত

  

পিএনএস ডেস্ক:১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর। খবর আসে বাংলা সিনেমার তুমুল জনপ্রিয় অভিনেতা সালমান শাহ আর নেই। এদিন সকালে রাজধানীর নিউ ইস্কাটন গার্ডেন এলাকায় ভাড়া বাসায় পাওয়া যায় অভিনেতার লাশ। এরপর পেরিয়ে গেছে ২০টি বছর। হয়েছে একের পর এক তদন্ত। সব কটি তদন্ত প্রতিবেদনেই এটিকে আত্মহত্যা বলে উল্লেখ করা হয়েছে। মানতে চায়নি পরিবার। নারাজির মুখে পরিবর্তন হয়েছে তদন্ত সংস্থা। ২০ বছর পর ফের শুরু হয়েছে তদন্ত। এবার দায়িত্বে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। গত ৬ ডিসেম্বর থেকে কাজ শুরু করেছে সংস্থাটি।

ছেলের মৃত্যুতে সালমানের বাবা কমর উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী রমনা থানায় অপমৃত্যুর মামলা করেন। তিনিও পৃথিবী ছেড়েছেন ২০০২ সালে। অপমৃত্যুর ওই মামলায় বলা হয়, ঘটনার দিন সকাল সাড়ে নয়টার দিকে গ্রীনরোডের নিজ বাসা থেকে ইস্কাটনে সালমানের ভাড়া বাসায় ছেলের সঙ্গে দেখা করতে আসেন কমর উদ্দিন। সালমানের ব্যক্তিগত সহকারী আবুল ও তার স্ত্রী সামিরা বলেন, 'সালমান রাত জেগে কাজ করেছে। এখন তাকে ঘুম থেকে ডাকা যাবে না। ' তিনি ঘণ্টাখানেক অপেক্ষা করে ফিরে আসেন বাসায়। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সেলিম নামের একজন ফোন করে জানান, সালমানের কী যেন হয়েছে। সালমানের বাবা, মা ও ভাই ওই ফ্ল্যাটে ছুটে যান। দেখতে পান শয়নকক্ষে পড়ে আছে সালমানের নিথর দেহ।

এরপর থেকে ছেলের মৃত্যুকে হত্যা দাবি করে সুষ্ঠু বিচারের আশায় ২০ বছর ধরে মানববন্ধন, সংবাদ সম্মেলনসহ নানা কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছেন সালমানের মা নীলা চৌধুরী। তার অভিযোগ, সেলিম নামে যে ব্যক্তি সালমানের মৃত্যুর খবর পরিবারকে জানাল, তারই জবানবন্দি নেওয়া হয়নি কোনো তদন্তে। মরদেহ সিলিং ফ্যান থেকে নামানোর প্রত্যক্ষদর্শী কারও জবানবন্দি নেওয়া হয়নি। এছাড়া কমরউদ্দিন ঘটনার দিন সালমানের সঙ্গে দেখা করতে গেলে তাকে দেখা করতে না দেওয়া সন্দেহজনক।

জানা গেছে, নতুন করে তদন্তের দায়িত্ব পাওয়ার পর আলামত সংগ্রহ শুরু করেছে পিবিআই। কথা বলছেন নিহতের পরিবারের বিভিন্ন সদস্য, স্বজন, বন্ধুদের সঙ্গে। টুকরো টুকরো আলামত সংগ্রহ করছেন তারা। ঘেটে দেখছেন পুরনো তদন্ত প্রতিবেদনগুলো।

পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech