বাংলাদেশি অভিনেত্রী যিনি ‘হিজাবি’ তিনিই আবার সল্প বসনায়!

  

পিএনএস ডেস্ক: মানুষের পাঁচটি মৌলিক চাহিদার একটি হচ্ছে বস্ত্র। অনেকে বস্ত্রকে অন্ন তথা খাবারের আগে স্থান দিয়ে থাকেন। কেন না, উলঙ্গাবস্থায় মানুষের কাছে খাবারের জন্য হাত পাতাও সম্ভব না। যা হোক, বস্ত্র পরিধান নিয়ে আমাদের দেশে সব সময় একটা সুপ্ত দ্বন্দ্ব চলমান থাকে। এ নিয়ে তিন ধরনের মতবাদ শোনা যায়। এক, নারীরা হিজাব পরবে। দুই, নারীরা হিজাব পরবে না, এবং তিন- নারীরা স্বাধীন, তারা তাদের ইচ্ছা মতো যেকোনো বস্ত্র পরিধান করবে। কিন্তু আক্ষেপের বিষয় হচ্ছে আমাদের সমাজ কাঠামো কিছু কিছু বস্ত্রের জন্য উপযোগী নয়। সেটি সামাজিক দৃষ্টি ভঙ্গির দোষ, সেই দোষ বস্ত্র পরিধানকারীর উপর বর্তায় কি না- সেটি পাঠকের বিবেচনার উপর ছেড়ে দিলাম।

আমাদের দেশের তারকাদের বস্ত্র পরিধানেও রয়েছে বৈচিত্র্য। কখন তারা পরেন হিজাব কখনো তারা পরেন খোলামেলা বস্ত্র। তাদের এই স্বাধীনচেতা মনভাবকে স্বাগত জানাই। উপরের ছবিটিতে শুরুতে দেখতে পাচ্ছেন- অভিনেত্রী মাহিয়া মাহিকে। একটিতে তিনি সল্প বসনা অপরটিতে হিজাবি। অনুরুপভাবে ছবিটিতে খোলামেলা, অতঃপর হিজাব পরিহিত অবস্থায় রয়েছেন যথাক্রমে- নায়লা নাইম, ফারিয়া শাহরীন ও মাহিয়া মাহি। যা হোক, উপরোক্ত চার তারকা ব্যতীত আরও একজন তারকা রয়েছেন যিনি একসময় সল্প বসনা থাকলেও বর্তমানে পুরোপুরি হিজাব গ্রহণ করেছেন। তিনি হচ্ছেন- নাজনিন আক্তার হ্যাপি তথা আমাতুল্লাহ। হ্যাপির সঙ্গে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের বোলার রুবেলের ঘটিত ঘটনা কারো অজানা নয়। তারপর থেকেই নিজের ‘লাইফস্টাইল’ পুরোপুরি বদলে ফেলেছেন তিনি।

শুধু সমসাময়িক অভিনেত্রীরাই নন। হিজাব গ্রহণ করেছেন সাবেক ও প্রবীণ অভিনেত্রীরাও।

পরিশেষে বলতে হয়, বস্ত্রে মানুষের পরিচয় নয়। বস্ত্র নিয়ে বাক-বিতণ্ডা করাও কাম্য নয়। আমাদের দেশের অভেনেত্রীরা যে কোনো পোশাকেই বেশ সুশ্রী। যে কোনো পোশাকেই তাদের ফ্যাশন ও স্টাইল সম্পূর্ণভাবেই যুগ উপযোগী। অভিনেত্রীরা এগিয়ে গেলে, এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।


পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech