আমেরিকা-রাশিয়া যুদ্ধ শিখতে ভারতের জঙ্গলে!

  

পিএনএস ডেস্ক: ভারতের মিজোরামের রাজধানী আইজল থেকে ১৩০ কিলোমিটার দূরের এক জঙ্গল। কোলাসিব জেলার ভিরাংটে। সেখানেই গভীর জঙ্গলে চলে সেনাবাহিনীর ট্রেনিং। এটাই বিশ্বের সব থেকে বড় জঙ্গল ওয়ারফেয়ার স্কুল। আমেরিকাসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে সেনাবাহিনী আসে এখানে ট্রেনিং নিতে।

মূলত সন্ত্রাসের মোকাবেলা করাই শেখানো হয় এখানে। শেখানো হয় গেরিলা যুদ্ধের পদ্ধতি। খুব কম লোকেই জানে এই জঙ্গলের কথা। কিন্তু এত কঠিন পরিস্থিতিতে যুদ্ধ করার ট্রেনিং আর কোথাও দেওয়া হয় না। নিজেদের দক্ষতা বাড়াতে তাই আসে বিভিন্ন সেনাবাহিনী।

এই ট্রেনিং স্কুল সম্পর্কে অজানা তথ্য-

* এই ট্রেনিং স্কুল প্রথম চালু করেছিলেন, ভারতীয় সেনাবাহিনীর ইস্টার্ন কমান্ডের তৎকালীন জেনারেল অফিসার কমান্ডিং-ই-চিফ ফিল্ড মার্শাল স্যাম মানেকশ।

* ১৯৬৭ তে শুরু হয় এই স্কুল। তখন এটি ছিল মেঘালয়ের জয়ন্তিয়া পাহাড়ের কাছাকাছি এলাকায়।

* ১৯৬৮ তে এই ট্রেনিং স্কুলকে ইস্টার্ন কমান্ড কাউন্টার ইনসার্জেন্সি স্কুলে পরিণত করা হয়। তখন প্রথম কমান্ডান্ট হিসেবে নিযুক্ত হন ব্রিগেডিয়ার ম্যাথু থমাস।

* জঙ্গি দমন ছাড়াও বিভিন্ন যুদ্ধের কৌশল শেখানো হয় এখানে। যেমন, আইইডি চিহ্নিতকরণ, জঙ্গলে বেঁচে থাকার উপায়, সন্ত্রাসের মোকাবিলা ইত্যাদি।

* ২০০৩ সালে ১০০ ইউএস কমান্ডো তিন সপ্তাহের জঙ্গি দমনের ট্রেনিং নিয়ে যায়। এই মহড়ার নাম দেওয়া হয় ‘ব্যালান্স ইরোকুইস’। ভিরাংটে-তে ভারতীয় সেনার সঙ্গে যুদ্ধ মহড়া হয়। যেখানে মার্কিন সেনাকে শেখানো হয়েছিল বিষধর সাপ, কুকুর ও বাদর খেয়ে কিভাবে জঙ্গলে বেঁচে থাকতে হয়।

* বিভিন্ন সময় আমেরিকা, সিঙ্গাপুর, নেপাল, ভুটান, রাশিয়া, ব্রিটেন, ইজরায়েল, ফ্রান্স, বাংলাদেশ ও অন্যান্য দেশ থেকে সেনা এসেছে এখানে ট্রেনিং দিতে।


পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech