যুক্তরাষ্ট্রে দাবানলে তিনজনের মৃত্যু

  

পিএনএস: যুক্তরাষ্ট্রের টেনেসি অঙ্গরাজ্যের গ্রেট স্মোকি পবর্তমালায় দাবানলে তিনজন মারা গেছেন এবং একশটিরও বেশি বাড়ি পুড়ে গেছে।

মঙ্গলবার স্থানীয় কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, দাবানলের সবচেয়ে ‘মারাত্মক’ পর্যায়টি পার হয়ে গেছে।

দাবানলে টেনেসির দুটি ছোট অবকাশযাপন টাউন হুমকির মুখে পড়েছিল। দাবানলের কবল থেকে রক্ষা পেতে গ্যাটলিনবার্গ ও পিজিয়ান ফোর্জ টাউনদুটির ১৪ হাজার বাসিন্দা পালিয়ে যান এবং ‍যুক্তরাষ্ট্রের কান্ট্রি মিউজিক তারকা ডলি পারটনের মালিকানধীন থিমপার্ক ‘ডলিউড’ পুড়ে যাওয়ার হুমকির মুখে পড়ে।

টেনেসির জরুরি ব্যবস্থাপনা সংস্থা জানিয়েছে, খরার কারণে শুকিয়ে থাকা ঝোপঝাড়ে লাগা আগুন ঘূর্ণিঝড়ের বেগে বয়ে যাওয়া বাতাসে গ্যাটলিনবার্গ ও পিজিয়ন ফোর্জের প্রান্ত পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় তিনজন মারাত্মক অগ্নিদগ্ধ হলে তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সংস্থাটি জানিয়েছে, আগুনে তিনজন নিহত ও ১৪ জন আহত হয়েছেন। তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতের বিষয়ে আর বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি।

গ্যাটলিনবার্গের কেন্দ্রস্থল আগুনের আঁচ থেকে মুক্ত থাকলেও ঘন কালো ধোঁয়া ও কমলা হয়ে ওঠা আকাশের কারণে আতঙ্কিত বাসিন্দারা গাড়ি নিয়ে শহর ছেড়ে যাওয়া জন্য ভিড় করেন।
টাউনটির মেয়র জানিয়েছেন, আগুনে শহরটির প্রায় তিন হাজার বাসিন্দা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।

তবে পিজিয়ন ফোর্জের কতোজন বাসিন্দা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

এখানকার ১৫০ একরের থিম পার্ক ডলিউডের কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, দাবানলের কারণে বুধবার তাদের থিম পার্ক বন্ধ থাকবে।

স্মোকি মাউন্টেইন্স ন্যাশনাল পার্কের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আগুন প্রতিরোধের ব্যাপক তৎপরতা এবং কেটে ফেলা গাছের কারণে পার্কের সব সেবা বন্ধ রাখা হয়েছে।

লিখিত এক বিবৃতিতে ডলি পারটন বলেছেন, “গ্রেট স্মোকি মাউন্টেইন্সের ভয়াবহ দাবানল দেখে আমার মন ভেঙে গেছে।”

এক ট্যুইটে যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, “ভয়াবহ এ্ই দাবানল চলাকালে টেনেসির মহান লোকজনের জন্য প্রার্থনা করছি আমি।”

ওই এলাকার প্রায় ১২ হাজার বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বিদ্যুৎবিহীন রয়েছে এবং প্রায় দুই হাজার মানুষ সরকারি শিবিরগুলোতে আশ্রয় নিয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় কর্মকর্তারা।



পিএনএস/বাকিবিল্লাহ্

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech