কুকুরের সঙ্গে যৌনতা, ৪ বছরের জেল যুবতীর

  

পিএনএস ডেস্ক: মাদক চোরাচালান, শিশু নির্যাতন এবং মারামারি করার অভিযোগ তো ছিলই। কিন্তু ব্রিসবেনের বাসিন্দা ২৭ বছর বয়সী জেনা লুইস ড্রিসকো-র বিরুদ্ধে চতুর্থ অভিযোগটা শুনে চমকে উঠেছিলেন আদালতের বিচারক টেরি মার্টিন। জেনা যে পোষা কুকুরের সঙ্গে যৌনতায় লিপ্ত হয়েছেন!

অভিযোগ স্বীকার করে নিয়েছেন জেনা। তাঁর চার বছরের জেল হয়েছে। চলতি বছরের আগস্টে জেনার বিরুদ্ধে একটি কুকুরের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করা-সহ চারটি অভিযোগ আনা হয়। প্রথমে সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন জেনা। তবে গতসপ্তাহে প্রথমবার তিনি অভিযোগ স্বীকার করেন। অস্ট্রেলিয়ায় অস্বাভাবিক যৌনতা এবং পশুক্লেশ বিরোধী আইন অত্যন্ত কড়া। আদালতে জেনা-র পক্ষের আইনজীবী জেমস গডবোল্ট বলেন, এই তরুণী তাঁর প্রেমিকের অনুরোধেই কুকুরের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করেছিলেন।

এ ছাড়া বিচারক টেরি মার্টিন উপস্থিতিতে জেনা স্বীকার করে নেন, এর আগে তিনি একজনের শরীরে কাঁটাচামচ ঢুকিয়ে দিয়েছিলেন এবং একটি শিশুকে কামড়ে দিয়েছিলেন। তিনি মাদকদ্রব্য চোরাচালানের সঙ্গেও জড়িত। ২০১৪ সালে মাদক চোরাচালান বিষয়ে অনুসন্ধান চালানোর সময় জেনার মোবাইল ফোনে তিনটি আপত্তিকর ভিডিও পায় পুলিস। সেই ভিডিওর সূত্র ধরেই কুকুরের সঙ্গে যৌনতার কথা জানা গেছিল।

পিএনএস/মো: শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech