সৌদি-তুরস্ক সম্পর্কের অবনতি

  

পিএনএস ডেস্ক: কাতার সঙ্কট নিয়ে সৌদি আরব ও তুরস্কের মধ্যকার সম্পর্কের অবনতি হতে শুরু করেছে। তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসওগ্লুর সৌদি সফরের সময় এ অবনতির চিত্র অনেকটা পরিষ্কার হয়েছে।

মধ্যপ্রাচ্য সংকট সমাধানের জন্য চাভুসওগ্লু গত শুক্রবার সৌদি আরব যান এবং পবিত্র মক্কায় রাজা সালমান বিন আবদুল আজিজের সঙ্গে বৈঠকে বসেন।

এ সফরের খবরাখবর পাঠানোর জন্য সঙ্গে ছিলেন তুরস্কের ইংরেজি ভাষার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন চ্যানেল টিআরটির এক সাংবাদিক। কিন্তু সৌদি পুলিশ তাকে আটক করে।

দৈনিক হুররিয়াত পত্রিকা জানিয়েছে, টিআরটি’র রিপোর্টার হাসান আবদুল্লাহ ও ক্যামেরাম্যান নিহাত আয়মানকে ১০ ঘণ্টা আটকে রাখা হয় এবং চাভুসওগ্লুর সরাসরি হস্তক্ষেপে তারা মুক্তি পান।

পরে আব্দুল্লাহ জানিয়েছেন, কাতার ইস্যুতে লাইভ বিশ্লেষণ করার কারণে তাদেরকে হোটেল থেকে আটক করে পুলিশ।

এদিকে, সৌদি আরবে তুর্কি সামরিক ঘাঁটি প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব নাকচ করেছে রিয়াদ। কিন্তু সৌদি রাজা আগে বিষয়টি বিবেচনা করার আশ্বাস দিয়েছিলেন।

এছাড়া, কাতারের বিরুদ্ধে অবরোধ আরোপ করেছে সৌদি আরব কিন্তু কাতারে সেনা পাঠাচ্ছে তুরস্ক। আবার মিশরের ইখওয়ানুল মুসলিমিনের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে সৌদি আরব কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে ইখওয়ানকে সমর্থন দিয়ে আসছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান। এসব মিলে দু দেশের মধ্যে সম্পর্কের দ্রুত অবনতি হচ্ছে।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech