ভারতীয় কামানের পরীক্ষা ব্যর্থ

  



পিএনএস ডেস্ক: ভারতের নিজস্ব প্রযুক্তিতে তৈরি দূরপাল্লার হাউইটজার কামান ধানুশের পরীক্ষা একাধিকবার শোচনীয়ভাবে ব্যর্থ হয়েছে। ফলে সম্ভাব্য যুদ্ধে এ কামান ব্যবহারের কোনো সম্ভাবনা নেই।

ভারতীয় সেনাসূত্র থেকে বলা হয়েছে, গত কয়েক মাসে অন্তত তিন দফা এ কামান দিয়ে পরীক্ষামূলক গোলা ছোড়ার চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। গত তিন মাসে তিন দফা ছয়টি ১৫৫এমএম/৪৫ ক্যালিবার ধানুশ কামানের পরীক্ষা চালানো হয়েছে। প্রতিবারই গোলা ছোড়ার সময় কামানের একটির নল ফেটে গেছে। এ কামানের সর্বশেষ পরীক্ষা করা হয় গত সপ্তাহে। সেখানেও একই ঘটনা ঘটেছে।

গোলার ত্রুটিসহ নানা কারণেই কামানের নল ফাটতে পারে। কিন্তু নিশ্চিত হওয়ার জন্য এসব কারণের প্রতিটি ভালোভাবে মূল্যায়ন করে দেখতে হবে বলে জানান ভারতের অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এবং প্রতিরা বিশ্লেষক রাহুল ভোসলে।

এর আগে ধানুশে জাল যন্ত্রাংশ ব্যবহারের কেলেঙ্কারিও ধরা পড়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে নির্মাণকারী সংস্থাটির কয়েকজন কর্মকর্তা এবং যন্ত্রাংশ সরবরাহকারী কোম্পানির বিরুদ্ধে এফআইআর দাখিল করেছে দেশটির কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই।

কামানে ব্যবহৃত অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এসব যন্ত্রাংশকে বেয়ারিং বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এগুলোর গায়ে ‘মেড ইন জার্মানি’ লেখা থাকলেও এগুলো চীনের তৈরি সস্তা যন্ত্রাংশ বলে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে উল্লেখ করা হয়।

৮০ এবং ৯০-এর দশকে কেনা বোফর্স কামান বর্তমানে ব্যবহার করছে ভারতের সেনাবাহিনী। এ কামান কেনা নিয়ে কেলেঙ্কারি হয়েছিল। ১৯৮৭ সালের মাঝামাঝি সময়ে সুইডেনের এবি বোফর্স থেকে কামান কেনা নিয়ে কেলেঙ্কারিকে কেন্দ্র করে ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী রাজিব গান্ধীর সৎ ও দুর্নীতিমুক্ত ইমেজ নস্যাৎ হয়ে যায়। ভারতে এটি বোফর্স কেলেঙ্কারি হিসেবে পরিচিত এবং একে কেন্দ্র করে ১৯৮৯ সালের নির্বাচনে ভরাডুবি ঘটেছিল রাজিব গান্ধীর নেতৃত্বাধীন কংগ্রেস দলের।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech