রাশিয়ার ভয়ে সুইডেনের বিশাল সামরিক মহড়া

  

পিএনএস ডেস্ক: ন্যাটো দেশগুলোর সহযোগিতায় গত ২০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বড় সামরিক মহড়া শুরু করেছে সুইডেন। প্রতিবেশী রাশিয়ার বাড়তে থাকা সামরিক সমতায় শঙ্কিত হয়ে সুইডেন এ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। গত বুধবার শুরু হওয়া এ সামরিক মহড়ায় ১৯ হাজার সৈন্য অংশ নিচ্ছে বলে জানিয়েছে। রাশিয়া ও বেলারুশ বিশাল যৌথমহড়া চালানোর সময়েই সুইডেন এ বিশাল মহড়া চালাচ্ছে।

২০১৩ সালের পর থেকে বৃহস্পতিবার শুরু হতে যাওয়া রাশিয়ার বৃহত্তম সামরিক মহড়াকে সামনে রেখে তিন সপ্তাহব্যাপী মহড়াটি শুরু করেছে সুইডেন। এতে দেশটির পূর্ব উপকূলের বাল্টিক সাগরের দ্বীপ গোটল্যান্ড পূর্ব দিকে থেকে সুইডেনের মূল ভূখণ্ডে হামলা চালানোর মহড়া দেয়া হবে বলে জানা গেছে।

অপর দিকে বেলারুশ, বাল্টিক সাগর, পশ্চিম রাশিয়া ও রাশিয়ার ছিটমহল কালিনিনগ্রাদ পর্যন্ত বিস্তৃত রাশিয়া ও মিত্রদেশ বেলারুশের যৌথ মহড়াটি ১৪ থেকে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে বলে জানিয়েছে রাশিয়া। ‘নিরাপত্তা পরিস্থিতি বিপজ্জনক দিকে মোড় নিয়েছে,’ মহড়ার পরিকল্পনা উপস্থাপনকালে বলেন সুইডেনের সশস্ত্র বাহিনীর কমান্ডার মিখায়েল বাইডেন।

রাশিয়ার প্রতিবেশী সুইডেন, লুথিনিয়া, লাটভিয়া, এস্তোনিয়া, পোল্যান্ড এবং পশ্চিমা দেশগুলো২০১৪ সালে রাশিয়া কর্তৃক ইউক্রেনের কৃষ্ণ সাগর তীরবর্তী উপদ্বীপ ক্রিমিয়াকে নিজের অংশ করে নেয়ার পর থেকে আতঙ্কিত হয়ে আছে। বাইডেন বলেন, ‘ক্রিমিয়াকে নিজের অংশ করে নেয়া ও পূর্ব ইউক্রেনে লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে রাশিয়া বর্তমানে ইউরোপের নিরাপত্তাকে বিঘিœত করে রেখেছে, তাই রাশিয়া কী করছে তা আমরা পর্যবেণ করছি।

এতে কোনো রাখঢাক নেই।’ অরোরা নামে সুইডেনের মহড়াটিতে যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স, নরওয়ে ও ন্যাটোভুক্ত অন্যান্য দেশের এক হাজার ৫০০ সেনা অংশ নিচ্ছে। তবে সুইডেন ন্যাটো সামরিক জোটের সদস্য নয়। ১৯৯০ সালের পর থেকে দেশটি সামরিক খাতে ব্যয় হ্রাস করলেও সম্প্রতি আবার বৃদ্ধি করতে শুরু করেছে। পাশাপাশি দেশের সব নাগরিকের বাধ্যতামূলক সামরিক প্রশিণ দান আবারো শুরু করেছে।


পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech