ভারতীয় পদাতিক সেনাদের প্রাথমিক অস্ত্রগুলোও নেই

  

পিএনএস ডেস্ক: ভারতের পদাতিক সেনারা এখনো একেবারে প্রাথমিক পর্যায়ের আধুনিক অস্ত্রগুলো পায়নি। এসব অস্ত্রের মধ্যে রয়েছে এ্যাসল্ট রাইফেল থেকে শুরু করে স্নাইপার গান, লাইট মেশিনগান থেকে কাছাকাছি যুদ্ধের উপযুক্ত কারবাইন। এক দশক আগে এসব অস্ত্র সংগ্রহের প্রকল্প গ্রহণ করা হলেও বার বার ওই প্রকল্প বাতিল করা হয়েছে। পাশাপাশি দেশীয়ভাবেও ওইসব অস্ত্র উৎপাদনে ব্যর্থ হয় দেশটি।

ভারতীয় সেনাদের এই ক্ষুদ্র অস্ত্রের ঘাটতির বিষয়টি গত সপ্তাহে অনুষ্ঠিত কমান্ডার্স কনফারেন্সে ব্যাপকভাবে আলোচিত হয়েছে বলে টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে উঠে আসে। সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত অস্ত্র সংগ্রহ প্রক্রিয়ার সঠিক ক্ষেত্রের প্রতি মনযোগ দিতে তার সিনিয়র লে. জেনারেলদেরকে নির্দেশ দেন।

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, বড় বড় কামান, বিমান প্রতিরক্ষা ক্ষেপণাস্ত্র ও হেলিকপ্টার সংগ্রহের উদ্যোগ নেয়া হলেও ‘ক্ষুদ্র অস্ত্র’ এখনো বড় রকমের উদ্বেগের কারণ হিসেবে বিরাজ করছে।

সার্বিক পরিকল্পনা অনুযায়ী ইন্ডিয়ান আর্মির ১২ লাখ সেনা সদস্যের জন্য ৮,১৮,৫০০ নতুন প্রজন্মের এ্যাসল্ট রাইফেল, ৪,১৮,৩০০ ক্লোজ-কোয়ার্টার ব্যাটল (সিকিউবি) কারবাইন, ৪৩,৭০০ লাইট মেশিনগান ও ৫,৬৭৯ স্নাইপার রাইফেল প্রয়োজন। বিমান বাহিনী ও নৌবাহিনীর চাহিদাও এই হিসাবে ধরা হয়েছে।

অস্ত্র সংগ্রহ পরিকল্পনায় কিছু অস্ত্র বিদেশ থেকে কিনে প্রযুক্তি স্থানান্তরের মাধ্যমে বাকিগুলো স্থানীয়ভাবে তৈরির কথা বলা হয়। কিন্তু ওই পরিকল্পনা এখন পর্যন্ত বাস্তবে রূপ লাভে ব্যর্থ হয়েছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

উদাহরণ হিসেবে দেখানো হয়, ভারতীয় সেনাবাহিনী তার পুরনো মডেলের সমস্যাগ্রস্ত ৫.৫৬ মিলিমিটার আইএনএসএএস (ইন্ডিয়ান স্মল আর্মস সিস্টেম) পরিবর্তন করে নতুন প্রজন্মের ৭.৬২ গুণিতক ৫১ মি.মি. এ্যাসল্ট রাইফেল কেনার জন্য ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর থেকে বিশ্বব্যাপী তল্লাশি অভিযান শুরু করে। গত এক দশক ধরে একই তৎপরতা চললেও তা দুর্নীতি কেলেংকারি, অবাস্তব কারিগরি শর্ত আরোপ এবং কাঙ্খিত অস্ত্রের ক্যালিবার পরিবর্তন, ইত্যাদি কারণে তা ব্যর্থ হয়েছে।

অন্যদিকে, রাইফেল ফ্যাক্টরি ইছাপোর-এ তৈরি ৭.৬২ গুণিতক ৫১ মি.মি. এ্যাসল্ট রাইফেলের প্রাথমিক সংস্করণ পরীক্ষার পর ভারতীয় সেনাবাহিনী জানায় এগুলো তাদের চাহিদা অনুযায়ী ‘হত্যার উচ্চতর সম্ভাবনা’ অর্জন করতে পারেনি।

অন্যদিকে, সিকিউবি কারবাইন কেনার একটি প্রকল্প গত বছর বাতিল করার পর এবছর নতুন করে নেয়া হয়েছে। আগের প্রস্তাবটি নেয়া হয়েছিলো ২০০৬ সালে। কিন্তু ভারতের চাহিদা মতো ওই কারবাইন সরবরাহ করতে শুধু ইসরাইলের একটি প্রতিষ্ঠান রাজি হয়েছিলো।

৭.৬২ গুনিতক ৫১ মি.মি. ক্যালিবারের লাইট মেশিনগানের ভাগ্যেও একই ঘটনা ঘটে বলে টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

তবে, স্নাইপার রাইফের কেনার উদ্যোগ অতি সাম্প্রতিক। সেনাবাহিনী ৮.৬ মি.মি. স্নাইপার রাইফের সংগ্রহ করতে আগ্রহী। এসব রাইফেল ১,২০০ মিটার দূর থেকে একজনকে হত্যা করতে পারে। বর্তমানে ভারতের হাতে যেসব স্নাইপার রাইফেল রয়েছে সেগুলো ১৯৯০ সালে রাশিয়ার কাছ থেকে সংগ্রহ করা হয়। দ্রাগুনভ নামে এসব রাইফেলের লক্ষ্যভেদ ক্ষমতা ৮০০ মিটার। তাছাড়া লক্ষ্যবস্তু ভালোভাবে দেখার জন্য আধুনিক ব্যবস্থাও এগুলোতে নেই। এগুলোর গুলি খুবই ব্যয়বহুল।

সবমিলিয়ে ভারতীয় সেনাবাহিনীর এখন হাত গুটিয়ে বসে থাকার অবস্থা বলে প্রতিবেদনে মন্তব্য করা হয়েছে।

পিএনএস/আনোয়ার


 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech