এবার দেশ ছাড়ছেন মংডুর রোহিঙ্গারা

  

পিএনএস ডেস্ক: মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে চলমান সহিংসতায় সীমান্ত পেরিয়ে আবারও প্রতিদিন বাংলাদেশে হাজার হাজার রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের পর এবার দেশ ছাড়ছেন মিয়ানমারের মংডু টাউনশীপের রোহিঙ্গারা। এখন কয়েক লাখ রোহিঙ্গা আশ্রয় নিয়েছে উখিয়ার কুতুপালং, বালুখালী, থাইংখালী, তাজনিম্যারখোলা পাহাড়, পালংখালী বাঘঘোনা পাহাড়, টেকনাফের চাকমারকুল, পুটিবনিয়া, লেদা, নয়াপাড়া, শামলাপুর এবং ঘুমধুম তুমব্রু সীমান্ত এলাকায়।

আরাকানের ৪ জেলার মধ্যে আকিয়াবের পর মংডুর স্থান। ২ থানা নিয়ে গঠিত হলেও আরাকান রাজ্যের অন্যতম বৃহত্তর ও সমৃদ্ধশালী জেলা হচ্ছে মংডু। মংডু থানাধীন মুসলিম অধ্যুষিত ১০৫ ইউনিয়নের রোহিঙ্গারা মিয়ানমার সেনা এবং মগদের বহুমুখী নির্যাতনের শিকার হয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসলেও মংডু শহরের আশপাশের গ্রামে অবস্থানকারী রোহিঙ্গারা নানা কৌশলে নাড়িকাটা মাতৃভুমি ছেড়ে আসেননি। এদের বেশীর ভাগই ভালো অবস্থা সম্পন্ন পরিবার এবং ব্যবসায়ী।

এদিকে প্রতিদিন হাজার হাজার রোহিঙ্গা আসা অব্যাহত থাকায় ক্যাম্পগুলোয় স্থান সংকুলান হচ্ছেনা বলে জানা গেছে। ফলে ক্যাম্পে ঠাঁই মিলছে না অধিকাংশের। তারা রাস্তা-ঘাট, দোকান-পাটসহ বিভিন্ন স্থানে আশ্রয় নিচ্ছে। এককথায় রোহিঙ্গা ভারে নুয়্যে পড়েছে উখিয়া-টেকনাফ।

বুধবার ১৮ অক্টোবর দুপুরে মিয়ানমার সীমান্তবর্তী এলাকা ঘুরে জানা গেছে সীমান্তের ওপারে এখনও কয়েক হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের জন্য অপেক্ষায় আছে। তাছাড়া মিয়ানমারের ‘পুরমা’ খালের পাড়ে কয়েক হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আসার জন্য অপেক্ষা করছে। নদীতে পাহাড়ী ঢলের কারনে তারা নদী পার হয়ে আসতে পারছেনা।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech