স্ত্রীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় দেখায় বন্ধুকে খুন

  


পিএনএস ডেস্ক: স্ত্রীর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্ক! আর তার জেরেই 'হরিহর আত্মা' বন্ধু তথা দক্ষিণ দিল্লির সাকেতের পানশালার কর্মী বিপিন জোশীকে খুন করেছিল ভারতের পুরুলিয়ার বাসিন্দা বাদল মণ্ডল ওরফে স্বপন সিং। ওড়িশা পুলিশের হাতে ধরার পড়ার পর নিজে মুখেই খুনের কথা স্বীকার করে নিল সে।

গত ১৮ অক্টোবর রাতে ওড়িশার ঝাড়সুগুদা পুলিশের হাতে ধরা পড়ে বাদল। এরপর ২০ অক্টোবর তাকে ট্রানজিট রিমান্ডে দিল্লি নিয়ে যায় সেখানকার পুলিশ। উত্তরাখণ্ডের বাসিন্দা বিপিনের সঙ্গে নিজের স্ত্রীর অবৈধ সম্পর্ক রয়েছে, এই সন্দেহেই বন্ধুকে খুন করে এবং দেহ তিন টুকরো করে ফ্রিজে রেখে দেয় বাদল। জেরায় দিল্লি পুলিশকে এমনটাই জানিয়েছে সে।

জেরায় বাদল জানায়, তার স্ত্রীর সঙ্গে বিপিনকে ঘনিষ্ঠভাবে দেখে ফেলার তার প্রিয় বন্ধুকে খুনের ষড়যন্ত্র করে। ঘনিষ্ঠতার দৃশ্য দেখে প্রথমে একেবারে চুপচাপ ছিল সে। তারপর দশেরার আগে তার স্ত্রী ও দুই মেয়েকে বাপের বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। এরপর গত ৯ অক্টোবর মধ্যরাতে মেহরৌলির সাইদুলবাজারে নিজের ফ্ল্যাটে মদের আসর বসিয়ে বন্ধু বিপিনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে খুন করে। এখানেই শেষ নয়, খুন করার পর দেহ তিন খণ্ড করে কালো প্লাস্টিকে মুড়ে ফ্রিজে রেখে দেয়।

তারপর ওই ভাড়া করা ফ্ল্যাটের দরজায় তালা লাগিয়ে পালিয়ে যায়।

জানা গেছে, বাদল ও বিপিন দু'জনেই দক্ষিণ দিল্লির সাকেতের একটি পানশালায় কাজ করত। বিপিন ওই পানশালার বার অ্যাটেন্ডার ছিল। বাদল সেখানে কুকের কাজ করত। তাদের প্রায় সাত বছরের বন্ধুত্ব ছিল। দু'জনেই ৯ অক্টোবর থেকে নিখোঁজ হয়ে যাওয়ায় তাদের সহকর্মীদের সন্দেহ বাড়ছিল।

বিপিনের পরিবার বিপিনকে না পেয়ে ১২ অক্টোবর স্থানীয় থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করে। এরপর গত ১৪ অক্টোবর বিকালে বিপিনের ভাই মহেশ বাদলের ভাড়া করা ফ্ল্যাটের ঘরের বাইরে গেলে দুর্গন্ধ নাকে লাগে। সঙ্গে সঙ্গে তিনি পুলিশকে জানালে, ওই ফ্ল্যাটের তালা ভেঙে ফ্রিজ থেকে বিপিনের তিন খণ্ড মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। বাদলের পাশেই একটি ফ্ল্যাটে ভাড়া থাকত বিপিন। যদিও, পুরুলিয়ার বলরামপুরের হাঁসপুরের যুবক বাদল ওরফে স্বপন যে এইভাবে খুন করতে পারে সেটা কিছুতেই মেনে নিতে পারছে না তার প্রতিবেশীরা।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech