প্রকাশ্যে মুসলিম ভোটারদের বিজেপি নেতার হুমকি

  

পিএনএস ডেস্ক: বিজেপিকে ভোট না দিলে কষ্ট পেতে পেতে হবে মুসলিমদের। এমন সমস্যায় পড়তে হবে, যেমনটা আগে কখনো হয়নি-এমন ভয়ঙ্কর ভাষাতেই সংখ্যালঘু ভোটারদের হুমকি দিলেন উত্তরপ্রদেশের বিজেপি নেতা।

বারাবংকীতে বিজেপির এই হুমকির তীব্র নিন্দা শুরু হয়েছে বিরোধী শিবিরে। মুসলিম ভোটারদের এমন সরাসরি শাসানি দেয়াকে সমর্থন করছে না বিজেপি, জানিয়েছেন বারাবংকীর দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী দারা সিংহ চৌহান।

এ মাসের শেষ দিকেই পৌর নির্বাচনের ভোটগ্রহণ হবে বারাবংকীতে। ভোটের প্রচার জোরকদমে। চলতি সপ্তাহের গোড়ার দিকে হওয়া এক জনসভা থেকে বারাবংকীর বিজেপি কাউন্সিলর রণজিৎ কুমার শ্রীবাস্তব মুসলিম ভোটারদের হুমকি দিয়েছেন বলে অভিযোগ। জনসভায় শ্রীবাস্তবের সেই ভাষণের ভিডিও ছড়িয়েও পড়েছে গোটা উত্তরপ্রদেশেই।

দারা সিংহ চৌহান এবং রমাপতি শাস্ত্রী— যোগী আদিত্যনাথ ক্যাবিনেটের এই দুই সদস্যের উপস্থিতিতেই ভাষণ দিচ্ছিলেন রণজিৎ কুমার শ্রীবাস্তব। এ বার শ্রীবাস্তবের আসনটি মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত। তাই শ্রীবাস্তবের স্ত্রী লড়ছেন সেখান থেকে।

স্ত্রীয়ের জন্যই ভোট চাইতে গিয়ে এলাকার সংখ্যালঘু ভোটারদের প্রতি শ্রীবাস্তবের শাসানি, ‘এটা কিন্তু সমাজবাদী পার্টির সরকার নয়। ... আপনাদের কোনো নেতাই কিন্তু এখন আর আপনাদের সাহায্য করতে পারবেন না। রাস্তাঘাট, নিকাশি— এ সব হল পুরসভার কাজ। এ ছাড়াও নানা সমস্যা কিন্তু আপনাদের হতে পারে।’

বিজেপিতে এমন কেউ নেই, যিনি সংখ্যালঘুদের স্বার্থরক্ষা করতে পারবেন, তাই কোনো ‘পক্ষপাত’ না করে বিজেপি প্রার্থীকেই যেন ভোট দেন সংখ্যালঘু মহল্লার মানুষ। ‘পরামর্শ’ রণজিৎ শ্রীবাস্তবের।
বিজেপি মুসলিম বিরোধী এবং সমাজবাদী পার্টি মুসলিমদের পক্ষে— রণজিৎ শ্রীবাস্তবের ভাষণে এই রকম বিভাজন ছিল স্পষ্ট। তিনি বলেন, ‘যে দূরত্ব আপনারা তৈরি করছেন, তাতে সমাজবাদী পার্টি কিন্তু আপনাদের সাহায্য করতে পারবে না। বিজেপি ক্ষমতায় রয়েছে। এমন কোনো সমস্যায় কিন্তু আপনাদের পড়তে হতে পারে, যার মুখোমুখি আগে কখনও হতে হয়নি।’

এর পরে সরাসরি হুমকি, ‘তাই আমি মুসলিমদের বলছি, আমাদের ভোট দিন। আমি ভিক্ষা চাইছি না। যদি ভোট দেন, শান্তিতে থাকবেন। যদি না দেন, তা হলে দেখতেই পাবেন কী কী সমস্যার মুখোমুখি হতে হচ্ছে।’

বিজেপি নেতার এই রকম শাসানির জেরে বিতর্কের ঝড় উঠেছে উত্তরপ্রদেশের রাজনৈতিক শিবিরে। কিন্তু রণজিৎ শ্রীবাস্তবের ঘনিষ্ঠ মহলের বক্তব্য— গত নির্বাচনেও এলাকার মুসলিম ভোটাররা শ্রীবাস্তবকে ভোট দেননি। তা সত্ত্বেও মুসলিম মহল্লার উন্নয়ন নিয়ে কোনও বৈষম্য করেননি শ্রীবাস্তব। তাই এ বার এ ভাবে শাসানি দিয়ে ভোট চাওয়ায় কোনও অন্যায় নেই।

উত্তরপ্রদেশের বিজেপি নেতৃত্ব অবশ্য শ্রীবাস্তবের পাশে দাঁড়াননি। যোগী ক্যাবিনেটের যে মন্ত্রী বারাবংকী জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত (মিনিস্টার-ইন-চার্জ), সেই দারা সিংহ চৌহান জানিয়েছেন, শ্রীবাস্তবের এই মন্তব্যকে দল সমর্থন করছে না।
সূত্র: আনন্দবাজার

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech