৮ হাজার নিরস্ত্র মুসলিম পুরুষ ও বালককে হত্যায় ‘বসনিয়ার কসাই’কে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

  

পিএনএস ডেস্ক: ‘বসনিয়ার কসাই’ খ্যাত সাবেক বসনিয়ান সার্ব কমান্ডার রাতকো ম্লাদিচকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

বসনিয়া ও হার্জেগোভিনার পূর্বাঞ্চলীয় ছোট পার্বত্য শহর স্রেব্রেনিৎসায় গণহত্যা চালানোর দায়ে ম্লাদিচকে গতকাল বুধবার এ সাজা দিয়েছে যুগোস্লাভিয়ায় যুদ্ধাপরাধ তদন্তে গঠিত জাতিসংঘের ট্রাইব্যুনাল।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, ম্লাদিচের বিচারের এ রায়ের মাধ্যমে বিশেষ এ ট্রাইব্যুনাল যুগোস্লাভিয়ায় যুদ্ধাপরাধের বিচার শেষ করল। এটিই ছিল ট্রাইব্যুনালের শেষ রায়।

১৯৯৫ সালের জুলাইয়ের ওই ঘটনায় অন্তত ৮ হাজার নিরস্ত্র মুসলিম পুরুষ ও বালককে হত্যা করা হয়েছিল, ম্লাদিচ ওই হত্যাকাণ্ডের নির্দেশ দিয়েছিলেন বলে তদন্ত কর্মকর্তাদের অভিযোগ।

অভিযোগপত্রে বলা হয়, ম্লাদিচ নেতৃত্বাধীন বাহিনীই স্রেব্রেনিৎসায় বসনীয় মুসলিমদের (বসনিয়াকস) নির্বিচারে হত্যা করে এবং সারায়েভোর দখল নেয়।

হেগের জাতিসংঘ ট্রাইবুনালে বুধবার ম্লাদিচের বিরুদ্ধে মোট ১১টি মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগের মধ্যে ১০টিতে তাকে দোষীসাব্যস্ত করা হয় বলে জানায় বিবিসি। যার মধ্যে স্রেব্রেনিৎসা গণহত্যার পাশাপাশি সারায়েভো অবরোধ করে হাজার হাজার মানুষকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেওয়ার অভিযোগও আছে।

তবে রায় ঘোষণার সময় ৭৪ বছরের ম্লাদিচ আদালতে উপস্থিত ছিলেন না।

বিবিসি জানায়, বিচারকদের বিরুদ্ধে চিৎকার করার কারণে তাকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল।

ম্লাদিচ উচ্চ রক্তচাপে ভুগছেন জানিয়ে তার আইনজীবীরা বিচার প্রক্রিয়া স্থগিত রাখার অনুরোধ করেছিল। কিন্তু বিচারকরা সেই অনুরোধে সাড়া দেননি।

যদিও এদিন শুরুতে তাকে ভারমুক্ত ও হাসিখুশি দেখাচ্ছিল এবং তিনি ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে পোজ দিচ্ছিলেন।

এদিকে ম্লাদিচ তার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন এবং তার আইনজীবীরা এই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন বলেও জানিয়েছেন।

তাদের ভাষ্য, সার্ব বাহিনী ও তার মিত্রদের গণহত্যা এবং বেসামরিকদের ওপর ‘জাতিগত নির্মূল অভিযানে’ ম্লাদিচের জড়িত থাকার অকাট্য প্রমাণ মেলেনি, যে কারণে অভিযুক্ত হলেও তাকে ১৫ বছরের বেশি কারাদণ্ড দেওয়ার সুযোগ নেই।

পিএনএস/কামাল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech