এ ধর্ষণ যেন ‘নির্ভয়া’ কাণ্ডকে ছাড়িয়ে

  

পিএনএস ডেস্ক : এ যেন ‘নির্ভয়া’ কাণ্ডকে ছাড়িয়ে যায়। এবার এমন ঘটনা ঘটল ভারতের হরিয়ানা রাজ্যে। দশম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে গণধর্ষণের পর ভয়াবহ নির্যাতন করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। তার শরীরের স্পর্শকাতর জায়গাসহ বিভিন্ন জায়গায় ১৯টি গভীর আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়, হরিয়ানার কুরুক্ষেত্র জেলার একটি গ্রামের ওই কিশোরী গত সপ্তাহে প্রাইভেট পড়তে গিয়ে নিখোঁজ হয়। কিন্তু গত শনিবার জিন্দ জেলায় একটি খালের পাশ থেকে তার ক্ষতবিক্ষত অর্ধনগ্ন লাশ পাওয়া যায়।

ভারতের দিল্লিতে ২০১২ সালের ডিসেম্বরে চলন্ত বাসে ধর্ষণ ও নির্যাতনের পর ২৩ বছর বয়সী মেডিকেল ছাত্রী ‘নির্ভয়া’কে ছুড়ে ফেলা হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় নির্ভয়া।

পিজিআই রোহতকের চিকিৎসক এস কে দত্তরওয়াল বলেন, ‘তার মুখ, ঘাড়ে, গলা ও বুকে ক্ষত ছিল। ওর যকৃৎ ও ফুসফুসও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, দুই দিন আগে তাকে হত্যা করা হয়েছে। তার গোপনাঙ্গে শক্ত কিছু ঢুকিয়ে ক্ষতবিক্ষত করা হয়। সে যে যৌন নির্যাতনের শিকার তা স্পষ্ট। তার ক্ষত দেখে মনে হচ্ছে, তিন-চারজন এ ঘটনায় জড়িত। এবং তাকে চোবানো হয়েছে।’

প্রশাসনের ওপর তীব্র ক্ষোভ ঝেড়ে মেয়েটির বাবা বলেন, ‘আমার মেয়েকে অপহরণের পর ধর্ষণ করা হয়। ওকে নির্যাতন করা হয়...প্রশাসন যদি তার কাজ ঠিকমতো করত, তাহলে আমার মেয়ের এমন ঘটনা ঘটত না।’

এদিকে এই ঘটনায় দুটি বিশেষ তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে জিন্দ পুলিশ।

লিঙ্গবৈষম্য দূর করতে ভারতের হরিয়ানা রাজ্যে শুরু হয়েছে ‘বেটি বাঁচাও’ কর্মসূচি। আর এরই মধ্যে রাজ্যে এ ঘটনাসহ তিনটি ধর্ষণের ঘটনা ঘটল। গত শনিবার হরিয়ানার পানিপাত জেলায় ১১ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়। গতকাল রোববার ফরিদাবাদে ধর্ষণের শিকার হন ২২ বছরের এক তরুণী। গত মাসে হিশার জেলায় ছয় বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের পর নির্মমভাবে হত্যা করা হয়।

ওই চিকিৎসক বলেন, মরদেহ দেখে এটা স্পষ্ট যে কিশোরিটি পালাতে লড়াই করেছিল। কিন্তু আবার তাকে ধরা হয় এবং তার বুকের ওপর চেপে বসেছিল কেউ।

জিন্দের পুলিশ জানায়, এ ঘটনায় ঊর্ধ্বতন পুলিশের নেতৃত্বে দুটি বিশেষ তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

আনন্দবাজারের খবরে বলা হয়, পুলিশ জানিয়েছে, নিখোঁজ হওয়ার পর ঝাঁসা থানায় মেয়েটির পরিবারের পক্ষ থেকে একটি ডায়েরি করা হয়েছিল। যেদিন মেয়েটি নিখোঁজ হয়, ওই দিনই এলাকার একটি ছেলে নিখোঁজ হয়ে যায়। এই ঘটনার পেছনে ওই ছেলেটির হাত থাকতে পারে বলে পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন মেয়েটির বাবা।

পিএনএস/জে এ /মোহন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech