উত্তর কোরিয়ামুখি লাউডস্পিকার বন্ধ করেছে দক্ষিণ কোরিয়া - আন্তর্জাতিক - Premier News Syndicate Limited (PNS)

উত্তর কোরিয়ামুখি লাউডস্পিকার বন্ধ করেছে দক্ষিণ কোরিয়া

  

পিএনএস ডেস্ক:উত্তর কোরিয়ার সীমান্ত বরাবর বসানো লাউডস্পিকারের মাধ্যমে প্রচারণামূলক সম্প্রচার চালানো বন্ধ করেছে দক্ষিণ কোরিয়া। চলতি সপ্তাহে হতে যাওয়া শীর্ষ পর্যায়ের বৈঠককে সামনে রেখে দেশটি এ পদক্ষেপ নিয়েছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

আগামী শুক্রবার উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে ইনের বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। এক দশকেরও বেশি সময়ের মধ্যে দুই কোরিয়ার নেতাদের প্রথম বৈঠক হতে যাচ্ছে এটি।

শীর্ষ পর্যায়ের এ বৈঠকে সামনে রেখে ‘উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যে সামরিক উত্তেজনা হ্রাস ও শান্তিপূর্ণ বৈঠকের মেজাজ তৈরির উদ্দেশ্যে’ প্রচারণামূলক সম্প্রচার বন্ধ করার পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে বার্তা সংস্থা ইয়োনহ্যাপে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে জানিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

সীমান্তজুড়ে উত্তর কোরিয়ার দিকে মুখ করা বহু লাউডস্পিকার বসিয়ে কোরীয় পপ মিউজিক থেকে শুরু করে উত্তর কোরিয়ার সমালোচনা করে সংবাদ প্রতিবেদন সম্প্রচার করে আসছিল দক্ষিণ কোরিয়া।

উত্তর কোরিয়ার সীমান্তে মোতায়েন উত্তর কোরীয় সেনা ও সীমান্ত এলাকার বাসিন্দারা ওই সম্প্রচার শুনতে পেতো।

অপরদিকে সীমান্তের অপর পাশে উত্তর কোরিয়ার অংশেও লাউডস্পিকার বসানো ছিল। সেগুলোতে দক্ষিণ কোরিয়া ও এর মিত্রদের সমালোচনা করে প্রতিবেদন সম্প্রচার করতো উত্তর কোরিয়া।

চলতি সপ্তাহের প্রথমদিকে পারমাণবিক পরীক্ষা স্থগিত ও পারমাণবিক পরীক্ষা কেন্দ্রের কার্যক্রম বন্ধের ঘোষণা দেয় উত্তর কোরিয়া। দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ঐতিহাসিক এক আলোচনার জন্য প্রস্তুতি নেওয়ার মধ্যেই দেশটি থেকে এ ঘোষণা আসে যা পর্যবেক্ষকদের বিস্মিত করেছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুনের সঙ্গে বৈঠকের পর কিমের জুনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক করার কথা রয়েছে। কোরীয় যুদ্ধের পর থেকেই সীমান্তে লাউডস্পিকার বসিয়ে উত্তরের বিরুদ্ধে প্রচারণামূলক সম্প্রচারণ শুরু করে দক্ষিণ কোরিয়া; তারপর থেকে কখনো বন্ধ, কখনো সচল, এভাবেই সম্প্রচার চলে এসেছে।

উত্তর কোরিয়ার নেতারা তাদের সৈন্যদের যা বলে, সে বিষয়ে সৈন্যদের মনে সন্দেহ তৈরি করাই দক্ষিণের এই সম্প্রচারের উদ্দেশ্য। ২০০৪ সালে দুই দেশের মধ্যে এক চুক্তির অংশ হিসেবে এই সম্প্রচার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ২০১৫ সালে দুই কোরিয়ার মধ্যবর্তী ডিমিলিটারাইজড জোনে (ডিএমজেড) উত্তর কোরিয়ার পেতে রাখা মাইনে দক্ষিণের দুই সৈন্য গুরুতর আহত হলে সম্প্রচার ফের শুরু করে দক্ষিণ কোরিয়া।

পরে একই বছর আবার সম্প্রচার বন্ধ করা হয়, পরে উত্তর কোরিয়ার হাইড্রোজেন বোমা পরীক্ষার প্রতিক্রিয়ায় ২০১৬ সালে পুনরায় সম্প্রচার শুরু করা হয়।দক্ষিণের লাউডস্পিকার সম্প্রচার বন্ধ করা হলেও উত্তর কোরিয়ারগুলো বন্ধ করা হয়েছে কি না তা জানা যায়নি।

পিএনএস/আলআমীন

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech