ইমরান খানের পাঁচ অবৈধ সন্তান আছে!

  

পিএনএস ডেস্ক : ক্রিকেট তারকা থেকে রাজনীতিক হওয়া ইমরান খানের পাঁচ অবৈধ সন্তান রয়েছে বলে দাবি করেছেন তাঁর সাবেক স্ত্রী রেহাম খান। আত্মজীবনীমূলক এক বইয়ে ইমরান খানের বিষয়ে এ তথ্য দিয়েছেন তিনি। বলেছেন, পাঁচজন বিবাহিত নারীর সঙ্গে সম্পর্কের পরিণতিতে ইমরানের এসব সন্তানের জন্ম।

যুক্তরাজ্য ও অনলাইনে কেনাকাটার প্রতিষ্ঠান আমাজনে গতকাল বৃহস্পতিবার তাঁর বইটি প্রকাশিত হয়। বই প্রকাশের আগেই পাণ্ডুলিপির কিছু অংশ অনলাইনে ফাঁস হয়ে যায়।

এ নিয়ে দেশটির রাজনৈতিক অঙ্গনে তুলকালাম শুরু।
ইমরান খানের রাজনৈতিক দল পাকিস্তানের তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) অনেক নেতা মনে করছেন, বিরোধী দলের কাছ থেকে অর্থ নিয়ে ইমরানের মর্যাদা খাটো করতে তাঁর সাবেক স্ত্রী এমনটি করেছেন। কয়েকজন টুইটারে লেখেন, আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করেই ইমরান খানের চরিত্রকে কলুষিত ও মানসম্মান ভূলুণ্ঠিত করার মতলব এটা।

পাকিস্তানের তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) চেয়ারম্যান ও সাবেক ক্রিকেটার ইমরান খানের দ্বিতীয় স্ত্রী ছিলেন রেহাম খান। রেহাম খানেরও এটি দ্বিতীয় বিয়ে ছিল। এই দম্পতির সংসারের স্থায়িত্ব ছিল ১০ মাস।

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি অনলাইনের খবরে জানানো হয়, পাণ্ডুলিপির কিছু অংশ প্রকাশিত হয়ে তুমুল বিতর্কের জন্ম দেয়। ‘রেহাম খান’ শিরোনামে প্রকাশিত বইয়ে রেহাম ১০ মাসের সংসারজীবনের নানা সমস্যা ও ইমরানের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের বিষয়গুলো তুলে ধরেন। ব্যক্তিগত বিষয় তুলে আনার অভিযোগে বইটি ঘিরে মানহানির একাধিক মামলা হয়েছে।

বইয়ের এক অধ্যায়ে অবৈধ সন্তানদের বিষয়ে ইমরান খানের সঙ্গে রেহাম খানের কথোপকথন তুলে আনা হয়। রেহাম দাবি করেন, পাঁচজন বিবাহিত নারীর সঙ্গে সম্পর্কের মাধ্যমে ইমরান খানের ঔরসজাত পাঁচ সন্তান রয়েছে। এর মধ্যে ভারতীয়ও আছে। ওই নারীরা তাঁদের বিয়ে টিকিয়ে রাখতে কখনো তা প্রকাশ করেননি। ইমরান খানের জীবন, ‘যৌনতা, ড্রাগস, ধুমধাড়াক্কাময়’ বলে লিখেছেন রেহাম খান।

বইয়ে লেখা হয়েছে:
রেহাম খান: কী? তোমার পাঁচ অবৈধ সন্তান রয়েছে! কীভাবে জানলে?
ইমরান খান: হুম, সন্তানের মায়েরা তা বলেছে আমাকে।
রেহাম খান: সব শ্বেতাঙ্গ?
ইমরান খান: না, এর মধ্যে কিছু ভারতীয় আছে। সবচেয়ে বড় সন্তানের বয়স ৩৪ বছর।

গত জুনে এনডিটিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে রেহাম খান (৪৫) বলেছিলেন, তাঁর অভিজ্ঞতা ‘কারও কাজে আসতে পারে’ ভেবে তিনি বইটি লেখেন। তিনি বলেন, ‘আমি আমার ভুলগুলোও তুলে ধরেছি। কেন আমি এমন একটি মানুষকে বিয়ে করলাম? কিছু বিষয়ে নারীর সতর্ক থাকা উচিত। আমার উদ্দেশ্য হচ্ছে, সচেতনতা তৈরি ও মানুষ হিসেবে কোথায় আমরা ভুল করি—এ ব্যাপারে পরামর্শ দেওয়া। যখন লোকজন ভোট দিতে যাবেন, তখন এটা তাঁদের কাজে লাগবে।’

১৯৯৫ সালে ইমরান বিয়ে করেন ব্রিটিশ ধনকুবের জেমস গোল্ডস্মিথের মেয়ে জেমিমাকে। ২০০৪ সালে দুজনের ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। ২০১৫ সালে দ্বিতীয়বার বিয়ের পিঁড়িতে বসেন ইমরান। বিয়ে করেন টেলিভিশন উপস্থাপক রেহাম খানকে। ১০ মাসের মাথায় তাঁদের বিয়ে ভেঙে যাওয়ার পর দুজন দুজনের বিরুদ্ধে পাল্টাপাল্টি অনেক অভিযোগই আনেন। রেহাম খান সাবেক স্বামী ইমরান খানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন নারীর সঙ্গে সম্পর্কসহ তাঁর সঙ্গে খারাপ আচরণের নানা অভিযোগ তোলেন।

অপর দিকে রেহাম খানের বিরুদ্ধেও একটি পক্ষ দাবি তোলে, তিনি ইমরান খানকে বিষ খাইয়ে হত্যার চেষ্টা করেছিলেন। ইমরানের রাজনৈতিক জনপ্রিয়তা হাতের মুঠোয় নেওয়াই নাকি ছিল তাঁর উদ্দেশ্য!

২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে বুশরা মানেকা নামে একজন আধ্যাত্মিক নেত্রীকে বিয়ে করেন ইমরান খান। মাস দু-একের মধ্যে সে বিয়েরও ইতি ঘটে।

পিএনএস/জে এ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech