নিউজিল্যান্ডের মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার তদন্ত করছে তুরস্ক

  



পিএনএস ডেস্ক: নিউজিল্যান্ডে মসজিদে হামলাকারী ব্রেন্টন ট্যারেন্টের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে তুরস্ক। ব্রেন্টন ট্যারেন্ট বেশ কয়েকবার তুরস্কে সফরে গিয়েছিলেন এমন সংবাদের পর আঙ্কারা তার বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে।

সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

তুরস্কের এক সরকারি কর্মকর্তা বলেছেন, মসজিদে হামলাকারী ওই অস্ট্রেলীয় সন্ত্রাসী বেশ কয়েকবার তুরস্ক সফর করে এবং দীর্ঘ সময় ধরে অবস্থান করেছিলেন।

ওই হামলাকারী কখন তুরস্কে এসেছিলেন সেটি নির্দিষ্ট করে জানায়নি তুর্কি এই কর্মকর্তা।

তুর্কি এই কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ওই হামলাকারী তুরস্ক থেকে ইউরোপ, এশিয়া ও আফ্রিকার কোনো দেশে গিয়েছিলেন বলে আমরা ধারণা করছি। হামলাকারীর চলাফেরা এবং তুরস্কে অবস্থানকালে কার সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন সেব্যাপারে তথ্য সংগ্রহ করার চেষ্টো করছি।

তুরস্কের স্থানীয় গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, তুরস্কের নির্দিষ্ট কিছু স্থানে ঘুরতে গিয়েছিলেন হামলাকারী ওই বন্দুকধারী। ইস্তাম্বুলের হাজিয়া সোফিয়া মসজিদের মিনারেও উঠেছেলেন তিনি। অটোম্যান শাসনামলে খ্রিস্টানদের উপাসনালয় হিসেবে ব্যবহৃত হতো হাজিয়া সোফিয়া। পরে এটিকে মসজিদে রূপান্তরিত করা হয়।

জানা যাচ্ছে ২০১৮ সালের নভেম্বরে তুরস্ক থেকে হামলাকারী ব্রেন্টন বুলগেরিয়া সফর করেছিলেন। তার ওই সফর নিয়েও তদন্ত করছে তুরস্ক।

এর আগে ২০১৬ সালে ওই হামলাকারী বাসযোগে বলকান রাষ্ট্র সার্বিয়া, ক্রোয়েশিয়া, মন্টিনিগ্রো, বসনিয়া ও হারজেগোভিনা সফর করেন অস্ট্রেলীয় বংশোদ্ভূত এই হামলাকারী।

হামলার সংবাদ পেয়েই তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে প্রাণঘাতী হামলার নিন্দা জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, এই হামলা ইসলামের প্রতি ক্রমবর্ধমান শত্রুতার প্রতিফলক; যা অলসভাবে দেখছে বিশ্ব। অনেক সময় বিশ্ব এসব হামলাকে উৎসাহিত করছে।

পিএনএস/হাফিজুল ইসলাম

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech