জাতিসংঘের পরিচয়পত্র পেলো আড়াই লাখ রোহিঙ্গা

  

পিএনএস ডেস্ক : মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্যাতনের মুখে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া শরনার্থীদের মধ্যে প্রায় আড়াই লাখ রোহিঙ্গাকে পরিচয়পত্র দিয়েছে জাতিসংঘ। এই পরিচয়পত্র রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফিরে যাওয়ার অধিকারের প্রমাণ বলে মনে করে আন্তর্জাতিক সংগঠনটি।

শুক্রবার (১৭ মে) পর্যন্ত আড়াই লাখেরও বেশি রোহিঙ্গার নিবন্ধন সম্পন্ন হয়েছে।পরিচয়পত্রটি মানবপাচার রোধ করার ক্ষেত্রেও গুরুত্বপূর্ণ একটি সরঞ্জাম হিসেবে ব্যবহার করা যাবে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থা (ইউএনএইচসিআর)।

ইউএনএইচসিআর মুখপাত্র আন্দ্রেজ মাহেসিক বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বাংলাদেশ ও ইউএনএইচসিআর যৌথভাবে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা ২ লাখ ৭০ হাজার ৩৪৮ রোহিঙ্গা শরণার্থী অথবা ৬০ হাজার রোহিঙ্গা পরিবারের নিবন্ধন করেছে এবং তাদের পরিচয়পত্র দেওয়া হয়েছে। এছাড়া, প্রতিদিন ৪ হাজার রোহিঙ্গাকে এর আওতায় আনা হয়েছে। এই নিবন্ধনকরণ ২০১৮ সালের জুন মাসে শুরু হয়। ভবিষ্যতে এটি তাদের মিয়ানমারে ফিরতে কাজে লাগবে। তিনি আরও জানান, নতুন পরিচয়পত্র ১২ বছরের বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থীদের মূলদেশ মিয়ানমার বলে উল্লেখ করা হয়েছে। আইডিকার্ডে তাদের নাম, পারিবারিক যোগসূত্র, আঙ্গুলের ছাপ ও চোখের মণির ছবি রাখা হয়েছে। ইউএনএইচসিআর’র লক্ষ্য হলো নভেম্বরের মধ্যে এই নিবন্ধন প্রক্রিয়া শেষ করা।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের আগস্টে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্যাতনের মুখে পালিয়ে সাত লাখ ৪০ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। এর আগে থেকেই তিন লাখ রোহিঙ্গা নাগরিক মুসলিম সংখ্যালঘুর কারণে নির্যাতিত হয়ে শরণার্থী শিবিরে আশ্রিত ছিলেন।জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থার হিসেব অনুযায়ী কক্সবাজারের শরণার্থী শিবিরে এই মুহূর্তে ৯ লাখ রোহিঙ্গা রয়েছে। যদিও বাংলাদেশ সরকার ও অন্যান্য সহায়তাকারী প্রতিষ্ঠানের হিসেবে এর সংখ্যা অনেকবেশি।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech