বাবরি মসজিদ নিয়ে কবিতা লিখলেন ‘মমতা’

  

পিএনএস ডেস্ক : ভারতের অযোধ্যায় বাবরি মসজিদের স্থানটিতে একটি হিন্দু মন্দির বানানোর পক্ষেই রায় দিয়েছেন ভারতের সুপ্রিম কোর্ট।

সুপ্রিম কোর্টের ৫ সদস্যের বেঞ্চ এক সর্বসম্মত রায়ে বলেছে, অযোধ্যার যে ২.৭৭ একর জমি নিয়ে বিতর্ক ছিল বহুকাল ধরে সেখানে রামমন্দিরই হবে। আর মুসলমানদের মসজিদের জন্য ৫ একর জমি দেওয়ার নির্দেশও দেয়া হয় রায়ে। এতে কষ্ট পেয়েছেন মমতা ব্যানার্জি। বাবরি মসজিদের রায় নিয়ে কবিতা লিখলেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। কবিতার নাম ‘না বলা’।

তার মতে, অনেকসময় কিছু কথা না বললেও না বলাটাও আরও শক্তিশালী হয়ে ওঠে। কষ্ট পেলে তা গাঁথা থাকে মনের মধ্যে, যা ব্যথার উদ্রেক করে। এই যন্ত্রণা বাড়ায় মানসিক দূষণ। কথা বলতে না পারাটা খুবই যন্ত্রণার।

মমতা লিখেছেন-

না বলা

অনেক সময়

কথা না বলেও

অনেক কথা বলা হয়ে য়ায়।

কিছু বলার থেকে

না বলাটা

আরও শক্তিশালী বলা।

খিদে পেলে

খাবার না পেলে

খিদের ‘ক্ষুধা’ বোঝা যায়।

তেমনি ঘুমের সময়

ঘুম না পেলে

ঘুমের মর্ম বোঝা যায়।

দাঁত থাকতে

যেমন দাঁতের মর্ম

মর্মর গাঁথায় লেখা থাকে,

তেমনি কষ্ট পেল

‘কষ্টকর্ম’ প্রতি ছত্রে

গাঁথা থাকে।

মনের কথা

প্রকাশ না পেলে

কথা ‘ব্যথার’ উদ্রেক করে,

যা মানসিক দূষণ বাড়ায়।

বলা হয়ে গেলে খুলে যায় দ্বার-

কথা-কথায় কথা বলে।

আর না বলতে পারাটা

অতীব যন্ত্রণা।

ওটা তো হৃদয়ের শক্তিশেল-

জমা থাকে।।

এর আগে কাশ্মীরে ৫ বাঙালি শ্রমিকের মৃত্যু নিয়ে কবিতায় প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন মমতা।

আসামের জাতীয় নাগরিক তালিকা নিয়ে তার কবিতা ‘পরিচয়’-এ নিশানা করেছিলেন ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজিপিকেই। বিরোধীদের পক্ষ নিয়ে মমতার বক্তব্য ‘প্রতিবাদ করলেই তুমি বিরোধী’।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech