এক সপ্তাহে পুরো পরিবার শেষ

  


পিএনএস ডেস্ক: কিছুদিন আগেও স্ত্রী-সন্তান নিয়ে সুখের সংসার ছিল আলফ্রেদো বারতুচ্চির। কিন্তু মাত্র দু’সপ্তাহেই শেষ হয়ে গেল সব। কয়েকদিনের ব্যবধানে একে একে না ফেরার দেশে পাড়ি জমালেন সবাই।

জানা যায়, ইতালিতে করোনা সংক্রমণের হটস্পট লোম্বার্দির ভোঘেরা শহরে থাকত পরিবারটি। করোনা আক্রান্ত হয়ে গত ২৭ মার্চ প্রথমে মারা যান ৮৬ বছর বয়সী আলফ্রেদো। এর কিছুদিনের মধ্যেই মারা যান তার দুই ছেলে দানিয়েল (৫৪) ও ক্লদিও (৪৬)। মাত্র ১০ দিন আগেই অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন তারা।

সবশেষ, ১ এপ্রিল মৃতের তালিকায় নাম লিখিয়েছেন আলফ্রেদোর স্ত্রী ৭৭ বছর বয়সী অ্যাঞ্জেলা। তিনিও স্বামী-সন্তানের সঙ্গে একই হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন ছিলেন।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, পরিবারটির সবারই জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্টের মতো উপসর্গ দেখা দিয়েছিল।

স্থানীয় বাসিন্দা আন্তোনিও রিকার্দি বলেন, মাত্র দুই সপ্তাহের মধ্যেই একটি প্রজন্ম পুরো শেষ হয়ে গেল। আমরা আগে কখনোই এমনটা দেখিনি। এমন দৃশ্য দেখলে যে কারও চোখেই পানি আসবে!

করোনাভাইরাস মহামারিতে ইতালির মধ্যে সর্বোচ্চ তো বটেই, সারাবিশ্বের মধ্যেই দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আক্রান্ত অঞ্চল লোম্বার্দি। আর মৃত্যুর ঘটনায় সবার ওপরে তারা।

জন হপকিন্স ইউনিভার্সিটির হিসাবে, ইতালিতে এপর্যন্ত অন্তত ১ লাখ ৫ হাজার ৭৯২ জনের শরীরে নভেল করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত হয়েছে। মারা গেছেন ১২ হাজার ৪২৮ জন। বিপরীতে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ১৫ হাজার ৭২৯ জন।
সূত্র: দ্য ডেইলি স্টার

পিএনএস/হাফিজ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন