দক্ষিণ কোরীয় 'কর্মকর্তাকে হত্যার পর পুড়িয়ে দিয়েছে' উত্তর কোরিয়া

  


পিএনএস ডেস্ক: দক্ষিণ কোরিয়ার এক কর্মকর্তাকে গুলি করে হত্যার পর পুড়িয়ে দিয়েছে উত্তর কোরিয়ার সেনারা। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে। তারা এ ঘটনা 'নিষ্ঠুর' বলে আখ্যা দিয়েছে। খবর বিবিসির।

সিউল জানিয়েছে, সীমান্তের একটি প্যাট্রল বোট থেকে সোমবার ওই ব্যক্তি নিখোঁজ হয়েছিলেন। পরে উত্তর কোরিয়ার জলসীমায় তাকে পাওয়া যায়। দেশটির সৈন্যরা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করার পর হত্যার সিদ্ধান্ত নেয়। করোনা প্রতিরোধে এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে এ ঘটনা ব্যাখ্যা চেয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া। পাশাপাশি তারা দোষীদের শাস্তিও দাবি করেছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার দাবি, উত্তর কোরিয়া সৈন্যরা তাকে গুলি করেছে, তার শরীরের ওপর তেল ঢেলে আগুন লাগিয়েছে।

এ বিষয়ে এখনো কোনো মন্তব্য করেনি উত্তর কোরিয়া। মহামারী করোনাভাইরাস ঠেকাতে উত্তর কোরিয়া সীমান্তে 'হত্যার উদ্দেশ্যে গুলি' করার নীতি গ্রহণ করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। দেশে ঢুকে যাতে কেউ করোনাভাইরাস ছড়াতে না পারে সে জন্যই সীমান্তে এ কড়াকড়ি উত্তর কোরিয়ার।

দক্ষিণ কোরিয়ার ওই কর্মকর্তা মৎস্য বিভাগে কাজ করতেন। তার প্যাট্রল বোট উত্তর কোরিয়ার সীমান্ত থেকে ১০ কিলোমিটার দূরে ছিল। পরে ৪৭ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি জুতা রেখে লাইফ জ্যাকেট নিয়ে বোট থেকে নেমে পড়েন। নিজেদের জলসীমায় তাকে পাওয়ার পর আটক করে উত্তর কোরিয়া। ওই কর্মকর্তা কোনো অসৎ কর্ম সাধনের চেষ্টা করছিলেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন