কারাবাখে জঙ্গিদের আদলে গলা কেটে মানুষ হত্যা দেখতে চাই না: ইরান

  


পিএনএস ডেস্ক: নাগরনো-কারাবাখ অঞ্চলে উগ্র তাকফিরি সন্ত্রাসীদের মতো করে গলা কেটে মানুষ হত্যা করার দৃশ্য দেখতে চাই না বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে তেহরান।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাঈদ খাতিবজাদে সোমবার এক টুইটার বার্তায় এ সতর্কবাণী উচ্চারণ করেন।

নাগরনো-কারাবাখ অঞ্চলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে গত ২৭ সেপ্টেম্বর আজারবাইজান ও আর্মেনায়ার মধ্যে নতুন করে সংঘর্ষ শুরু হওয়ার পর তুরস্ক এ সংঘর্ষে সরাসরি আজারবাইজানের পক্ষ নিয়েছে। দু’টি দেশই ইরানের উত্তর সীমান্তে অবস্থিত এবং এ পর্যন্ত কারাবাখ অঞ্চলের লক্ষ্যচ্যুত বহু গোলা ইরানের ভূমিতে আঘাত হেনেছে।

গত শুক্রবার তুরস্কের সহযোগিতায় সিরিয়া থেকে আজারবাইজানে এক হাজার সন্ত্রাসী প্রবেশ করেছে বলে জানিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্টের মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকা বিষয়ক প্রতিনিধি মিখাইল বোগদানভ। তিনি সোমবার বলেন, তুর্কি কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলাপকালে রাশিয়া এ ব্যাপারে আঙ্কারার কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছে।

দৃশ্যত ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র এ খবরের প্রতি ইঙ্গিত করে কারাবাখ অঞ্চলে গলা কেটে মানুষ হত্যার ব্যাপারে আশঙ্কা প্রকাশ করলেন। তিনি বলেন, কারাবাখ অঞ্চল থেকে সংঘর্ষের উদ্বেগজনক দৃশ্য প্রকাশিত হচ্ছে।

আজারবাইাজন ও আর্মেনিয়া উভয় দেশকে সংযত আচরণ করার আহ্বান জানান খাতিবজাদে। তিনি বলেন, দু’দেশ তাদের লক্ষ্য অর্জনের জন্য সংঘাতের যে পথ বেছে নিয়েছে তার ব্যাখ্যা তাদের কেউই দিতে পারবে না।

ইরানের এই মুখপাত্র আন্তর্জাতিক আইনের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে উভয় দেশের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, তার দেশ কারাবাখ অঞ্চলে তাকফিরি সন্ত্রাসীদের মতো গলা কেটে মানুষ হত্যা করা বা নিরীহ বেসামরিক নাগরিকদের লক্ষ্য করে গোলা নিক্ষেপের ঘটনা মেনে নেবে না।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন