যুক্তরাষ্ট্র ইমিগ্রেশন কোর্টে টেলিফোনেই এসাইলাম মঞ্জুর বিএনপি কর্মীর

  


পিএনএস ডেস্ক: লকডাউন শিথিল হবার পর টেলিফোনে নিজের বক্তব্য উপস্থাপনের পর টেলিফোনেই যুক্তিতর্কে গতকাল বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) এক বাংলাদেশির এসাইলাম মঞ্জুর হলো পেনসিলভেনিয়াস্থ ইমিগ্রেশন কোর্টে।

করোনায় লন্ডভন্ড পরিস্থিতি এবং প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের নানা বিধিনিষেধ সত্ত্বেও বিএনপির নোয়াখালী অঞ্চলের সংগঠক মোহাম্মদ স্বপন (৩৩)-এর যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ীভাবে বসবাসের পথ সুগমের সংবাদে অপর এসাইলাম প্রার্থীদের মধ্যে স্বস্তি এসেছে।

স্বপনের আইনজীবী ছিলেন নিউইয়র্ক অঞ্চলের খ্যাতনামা অভিবাসী এটর্নি অশোক কর্মকার। তিনি জানান, ২০১৬ সালে মেক্সিকো হয়ে দুর্গম সীমান্ত পথে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের সময়েই গ্রেফতার হয়েছিলেন স্বপন। এরপর তিনি এসাইলাম প্রার্থনা করেন। কয়েকমাস টেক্সাসের ডিটেনশন সেন্টারে থাকার পর প্যারলে মুক্তিলাভ করেছেন তিনি। করোনার কারণে মধ্যমার্চ থেকেই আদালত বন্ধ। সম্প্রতি কিছু কিছু মামলার শুনানী শুরু হয়েছে টেলিফোনে। স্বপনের মামলাও সেভাবেই সম্পন্ন হলো। করোনার মধ্যে সম্ভবত নিউ ইয়র্ক অঞ্চলে এই প্রথম এক বাংলাদেশির এসাইলাম মঞ্জুর হলো।

প্রসঙ্গত, গত ৫/৬ বছরে দালাল ধরে বেশ কয়েক হাজার বাংলাদেশি তরুণও মেক্সিকো সীমান্ত পথে যুক্তরাষ্ট্রে ঢুকেই বিএনপি অথবা এলডিপি কিংবা জাতীয় পার্টির কর্মী পরিচয়ে এসাইলাম প্রার্থনা করেছেন। এদের অধিকাংশকেই পরবর্তীতে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হয়। অবশিষ্টরা আবেদনের সমর্থনে যথাযথ বক্তব্য এবং তথ্য-প্রমাণ উপস্থাপনে সক্ষম হওয়ায় পর্যায়ক্রমে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসের অনুমতি পাচ্ছেন।

পিএনএস/আনোয়ার

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন