বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ২১ লাখ ১৮ হাজার ছাড়ালো

  

পিএনএস ডেস্ক: করোনায় আক্রান্ত হয়ে বিশ্বব্যাপী মৃতের সংখ্যা ২১ লাখ ১৮ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। সেই সাথে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৯ কোটি ৮৭ লাখ অতিক্রম করেছে।

রোববার (২৪ জানুয়ারি) সকাল ৯টার দিকে জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয় (জেএইচইউ) থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ২১ লাখ ১৮ হাজার ৮০৮ জনে।

এছাড়া, ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯ কোটি ৮৭ লাখ ১ হাজার ৪৭০ জনে।

চীনের উহানে ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। গত ২০২০ সালের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে মহামারি ঘোষণা করে। এর আগে ২০ জানুয়ারি জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে ডব্লিউএইচও।

করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এ পর্যন্ত দেশটিতে ২ কোটি ৪৯ লাখ ৯০ হাজার ৩৬০ জন করোনায় আক্রান্ত এবং ৪ লাখ ১৭ হাজার ৩৮২ জন মৃত্যুবরণ করেছেন।

পৃথিবীর দ্বিতীয় জনবহুল দেশ ভারত রয়েছে করোনায় আক্রান্ত দেশের তালিকায় দ্বিতীয় এবং মৃত্যু নিয়ে তৃতীয় অবস্থানে। ল্যাটিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল আক্রান্ত দেশের তালিকায় তৃতীয় স্থানে থাকলেও সর্বাধিক মৃতের সংখ্যায় রয়েছে দ্বিতীয়তে।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভারতে মোট আক্রান্ত প্রায় ১ কোটি ৬ লাখ ৩৯ হাজার এবং মারা গেছেন ১ লাখ ৫৩ হাজার ১৮৪ জন। ব্রাজিলে মোট শনাক্ত রোগী ৮৮ লাখ ১৬ হাজারের বেশি এবং মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ১৬ হাজার ৪৪৫ জনের।

রোগী শনাক্তের দিক দিয়ে তালিকার পরবর্তী কয়েকটি দেশ হলো- রাশিয়া (৩৬ লাখ ৫৮ হাজারের বেশি), যুক্তরাজ্য (৩৬ লাখ ২৭ হাজারের বেশি), ফ্রান্স (৩০ লাখ ৯৩ হাজারের বেশি) ও স্পেন (২৪ লাখ ৯৯ হাজারের বেশি)।

মৃতের দিক দিয়ে বিশ্বে চতুর্থ স্থানে আছে মেক্সিকো (১ লাখ ৪৭ হাজার ৬১৪ জন)। এরপর যুক্তরাজ্যে ৯৭ হাজার ৫১৪ জন, ইতালিতে ৮৫ হাজার ১৬২ জন, ফ্রান্সে ৭৩ হাজার ১৮ জন ও রাশিয়ায় ৬৭ হাজার ৯১৯ জন মারা গেছেন।

এদিকে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৪৩৬ জনের শরীরে নতুন করে করোনা শনাক্ত হওয়ায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫ লাখ ৩১ হাজার ৩২৬ জনে পৌঁছেছে।

এছাড়া, মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একদিনে আরো ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮ হাজার ৩ জনে দাঁড়িয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে শনিবার পাঠানো করোনা সংক্রান্ত নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, দেশের সরকারি ও বেসরকারি ২০০ ল্যাবে আরটি-পিসিআর, জিন এক্সপার্ট ও র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন পরীক্ষার জন্য ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১১ হাজার ৭টি এবং পরীক্ষা করা হয়েছে ১১ হাজার ১১৫টি। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো ৩৫ লাখ ৪১ হাজার ৩৮৯টি। নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ৩ দশমিক ৯২ শতাংশ। আর মোট পরীক্ষায় এ পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছেন ১৫ শতাংশ।

নতুন যে ২২জন মারা গেছেন তাদের মধ্যে পুরুষ ১৭ এবং নারী ৫ জন। এখন পর্যন্ত মোট মারা যাওয়াদের মধ্যে পুরুষ ৬ হাজার ৬৪ জন বা ৭৫ দশমিক ৭৭ শতাংশ এবং নারী এক হাজার ৯৩৯ জন বা ২৪ দশমিক ২৩ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় মোট মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫১ শতাংশ।

পিএনএস/এএ

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন