ওসি মোয়াজ্জেমের আগাম জামিন আবেদন

  

পিএনএস ডেস্ক : ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যার ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় হাইকোর্টে আগাম জামিন আবেদন করেছেন সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন। বুধবার এ তথ্য জানা যায়।

সংশ্লিষ্ট শাখায় জামিন আবেদনটি দাখিলের পর সেটি অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। ঈদের পর অবকাশকালীন হাইকোর্ট বেঞ্চ রয়েছে।

নুসরাত তার মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদদৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ করেন। এরপর তৎকালীন ওসি মোয়াজ্জেম সোনাগাজী থানায় ডেকে নিয়ে নুসরাতের জবানবন্দি নিয়েছিলেন। সেই জবানবন্দি তিনি ভিডিও করেন। নুসরাতের মৃত্যুর পর ওই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

নুসরাতের মৃত্যুর পর গত ১৫ এপ্রিল ওই ভিডিও ছড়ানোর জন্য ওসি মোয়াজ্জেমকে আসামি করে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন আইনজীবী সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। এরপর ২৭ মে মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে পিবিআই অপরাধের প্রমাণ পেয়েছে। পিবিআইয়ের তদন্তে বলা হয়েছে, মোয়াজ্জেম হোসেন ওসি হিসেবে রাষ্ট্রের একটি গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে থেকেও নিয়মবহির্ভূতভাবে নুসরাতের বক্তব্যের ভিডিও করে ও প্রচার করে দায়িত্বজ্ঞানহীনতার পরিচয় দিয়েছেন।

গত ৬ এপ্রিল সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসায় নুসরাতের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঁচ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর মারা যান তিনি।

এদিকে বুধবার দুপুরে ফেনীর আদালতে চার্জশিট জমা দিয়েছে পিবিআই। নুসরাতকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় অধ্যক্ষ সিরাজ উদদৌলা ও আওয়ামী লীগের দুই স্থানীয় নেতাসহ মোট ১৬ জনের সম্পৃক্ততার প্রমাণ পাওয়া গেছে। এতে প্রত্যেক আসামির মৃত্যুদণ্ড চাওয়া হয়েছে। অধ্যক্ষ সিরাজকে আসামি করা হয়েছে নুসরাতকে হত্যার ‘হুকুমদাতা’ হিসেবে।

পিএনএস/মোঃ শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech