গণধর্ষণের ১৫ বছর পর দুই বন্ধুর যাবজ্জীবন

  

পিএনএস, বরিশাল প্রতিনিধি : চাকরির প্রলোভনে এক নারীকে (৩৫) গণধর্ষণের দায়ে দুই বন্ধুকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাদের এক লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও চার বছর কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে বরিশালের নারী ও শিশু নির্যাতন অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. আবু শামীম আজাদ এ দন্ডাদেশ দেন। দন্ডিত দুই বন্ধু পলাতক থাকায় তাদের অনুপস্থিতিতে এ রায় দেয়া হয়।

দন্ডপ্রাপ্তরা হলো, মামলার প্রধান আসামি বরিশাল নগরে রূপাতলী চরেরবাড়ি এলাকার নজরুল ইসলাম এবং একই এলাকার সাকিল আহেমদ ওরফে হাতকাটা সাকিল। একই মামলায় নজরুল ইসলামের স্ত্রী নাসরিন বেগমকে ১৪ বছর সশ্রম কারাদন্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও দুই বছরের কারাদন্ড দেয়া হয়। গণধর্ষণের শিকার ওই নারীর বাড়ি নগরের দক্ষিণ সাগরদী মদিনা মসজিদ সংলগ্ন এলাকায়। ধর্ষণের স্থান হিসেবে ঢাকা-বরিশাল রুটের লঞ্চের কেবিন এবং ঢাকার বিভিন্ন স্থান উল্লেখ করা হয়।

বরিশাল নারী ও শিশু নির্যাতন অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালের বেঞ্চ সহকারী (পেশকার) মো. আজিবর রহমান বলেন, চাকরির প্রলোভনে ওই নারীকে ২০০৩ সালের ৯ জুন বরিশাল থেকে লঞ্চযোগে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। এ সময় লঞ্চের কেবিনে নজরুল ও সাকিল তরুণীকে ধর্ষণ করে। এরপর ঢাকার বিভিন্ন স্থানে রেখে তরুণীকে ধর্ষণ করা হয়। তাদের কাছ থেকে পালিয়ে এসে বিষয়টি মাকে জানান ওই নারী।

এ ঘটনায় তার মা বাদী হয়ে ২০০৩ সালের ২০ জুন সাকিল আহেমদ ও নজরুল ইসলাম এবং নজরুল ইসলামের স্ত্রী নাসরিন বেগমকে আসামি করে মামলা করেন। একই বছরের ২৯ সেপ্টেম্বর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের তৎকালীন এসআই মাহিয়া খানম তিনজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দেন। সাতজনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে মামলার রায় দেন আদালত।

পিএনএস/মো. শ্যামল ইসলাম রাসেল

 

@PNSNews24.com

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন
Developed by Diligent InfoTech